০৩:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

print news -

সিলেট অফিস:  বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটে আলোচনা সভা ও কেক কাটার মাধ্যমে পালন করা হয়েছে।
সোমবার (২০ মে) বিকেলে নগরীর তালতলাস্থ একটি হোটেলের হলরুমে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার উদ্যোগে মহানগরের সভাপতি অ্যাডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলার সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট দেবব্রত চৌধুরী লিটনের সঞ্চালনায় আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোপিকা শ্যাম পুরকায়স্থ, সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি রজত কান্তি গুপ্ত, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার সহ সভাপতি ডিকন নিঝুম সাংমা, পূজা পরিষদ মহানগরের সহ সভাপতি নির্মল সিনহা, সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ কুমার দেব।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রঞ্জন ঘোষ, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক এপেক্সিয়ান চন্দন দাশ, মহিলা ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার আহবায়ক বিউটি বন্ধনা গ্রে, ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জি ডি রুমু, রাজ কুমার পাল রাজু, সংগঠনের অন্যতম নেতা শ্যামল চৌধুরী, ফিলিপ সমাদ্দার, মন মোহন দেবনাথ, অ্যাডভোকেট অরবিন্দু দাস গুপ্ত বিভু, আশীষ রায়, আনন্দ সমাদ্দার, শ্যামল কপালী, রঞ্জন চন্দ্র সরকার, মঙ্গলা সুত্রধর, লিটন দেব, শিপা হালদার, প্রদীপ ঘোষ, সনজিত দত্ত, যুগল কৃষ্ণ গোস্বামী, ডা. অরুন হালদার, রকি দেব, জীবন রায় চৌধুরী প্রমুখ।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভায় বক্তারা বলেন, দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ক্রান্তিকালে সমঅধিকার ও সমমর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ১৯৮৮ সালের ২০ মে প্রতিষ্ঠা পায়। ৭২’ এর সংবিধান থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনার অন্যতম ধর্ম নিরপেক্ষতাকে পঞ্চম ও অষ্টম সংশোধনীর মাধ্যমে বাদ দেওয়া হয়।
বক্তারা আরো বলেন, রাষ্ট্র কখনো ধর্ম পালন করেনা। ধর্ম মানুষের জন্য, তাই ধর্মনিরপেক্ষতাকে বাদ দিয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবে বৈষম্য ও নির্যাতনকে প্রশ্রয় দেয়া হয়। যার ফলশ্রুতিতে দেশের মন্দির, পেগড়া, গীর্জা, উপস্থাপনালয়ের পবিত্রতা নষ্ট সহ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নানা নির্যাতন- নিপীড়নের স্বীকার হতে হয়।
তারা বলেন, রাষ্ট্রকে অবশ্যই সকল বৈষম্য দূর করে সকল নির্যাতন, নিপীড়নবন্ধ করে সংখ্যালঘুদের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বক্তারা জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কেটে মিষ্টি মূখ করে আনন্দমুখর পরিবেশে উদযাপন করা হয়। বিজ্ঞপ্তি

জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৭:৫৩:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪
print news -

সিলেট অফিস:  বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটে আলোচনা সভা ও কেক কাটার মাধ্যমে পালন করা হয়েছে।
সোমবার (২০ মে) বিকেলে নগরীর তালতলাস্থ একটি হোটেলের হলরুমে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার উদ্যোগে মহানগরের সভাপতি অ্যাডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলার সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট দেবব্রত চৌধুরী লিটনের সঞ্চালনায় আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোপিকা শ্যাম পুরকায়স্থ, সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি রজত কান্তি গুপ্ত, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার সহ সভাপতি ডিকন নিঝুম সাংমা, পূজা পরিষদ মহানগরের সহ সভাপতি নির্মল সিনহা, সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ কুমার দেব।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রঞ্জন ঘোষ, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক এপেক্সিয়ান চন্দন দাশ, মহিলা ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার আহবায়ক বিউটি বন্ধনা গ্রে, ঐক্য পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জি ডি রুমু, রাজ কুমার পাল রাজু, সংগঠনের অন্যতম নেতা শ্যামল চৌধুরী, ফিলিপ সমাদ্দার, মন মোহন দেবনাথ, অ্যাডভোকেট অরবিন্দু দাস গুপ্ত বিভু, আশীষ রায়, আনন্দ সমাদ্দার, শ্যামল কপালী, রঞ্জন চন্দ্র সরকার, মঙ্গলা সুত্রধর, লিটন দেব, শিপা হালদার, প্রদীপ ঘোষ, সনজিত দত্ত, যুগল কৃষ্ণ গোস্বামী, ডা. অরুন হালদার, রকি দেব, জীবন রায় চৌধুরী প্রমুখ।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভায় বক্তারা বলেন, দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ক্রান্তিকালে সমঅধিকার ও সমমর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ১৯৮৮ সালের ২০ মে প্রতিষ্ঠা পায়। ৭২’ এর সংবিধান থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনার অন্যতম ধর্ম নিরপেক্ষতাকে পঞ্চম ও অষ্টম সংশোধনীর মাধ্যমে বাদ দেওয়া হয়।
বক্তারা আরো বলেন, রাষ্ট্র কখনো ধর্ম পালন করেনা। ধর্ম মানুষের জন্য, তাই ধর্মনিরপেক্ষতাকে বাদ দিয়ে রাষ্ট্রীয়ভাবে বৈষম্য ও নির্যাতনকে প্রশ্রয় দেয়া হয়। যার ফলশ্রুতিতে দেশের মন্দির, পেগড়া, গীর্জা, উপস্থাপনালয়ের পবিত্রতা নষ্ট সহ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নানা নির্যাতন- নিপীড়নের স্বীকার হতে হয়।
তারা বলেন, রাষ্ট্রকে অবশ্যই সকল বৈষম্য দূর করে সকল নির্যাতন, নিপীড়নবন্ধ করে সংখ্যালঘুদের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বক্তারা জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে এগিয়ে নিতে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কেটে মিষ্টি মূখ করে আনন্দমুখর পরিবেশে উদযাপন করা হয়। বিজ্ঞপ্তি