১১:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিলেটের গোলাপগঞ্জে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ

print news -

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি:: সিলেটের গোলাপগঞ্জে খাবারের লোভ দেখিয়ে দোকানের ভেতরে নিয়ে ৬ বছর বয়সী নাতনিকে ধর্ষণ করলেন দাদা। আর এই অভিযোগে ভুলু মিয়া (৬০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ। তিনি নির্যাতনের শিকার শিশুর দাদা ও উপজেলার লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের মাঝপাড়া গ্রামের মৃত জোবেদ আলীর ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সকালে উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের বারকোট গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়- গত ১৪ মে ভুলু মিয়া খাবারের লোভ দেখিয়ে লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের চৌধুরী বাজারে তার নিজ দোকানে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনা টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেন স্থানীয় মাতব্বরা। পরে বিষয়টি জেনে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) এর নজরে আসলে সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় সভাপতি রকিব আল মাহমুদ বাদী হয়ে ধর্ষণের শিকার শিশুর মাসহ ৬ জনকে আসামি করে গোলাপগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগটি আমলে নিয়ে থানায় রেকর্ডভুক্ত করে পুলিশ। তবে অন্য আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিলেও অভিযুক্ত দাদা পলাতক ছিলেন। অবশেষে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলামের দিকনির্দেশনায় অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বারকোট গ্রামে অবস্থিত ধর্ষক দাদার বোনের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে একটি পক্ষ কাজ করছিল। কিন্তু মামলার বাদী বিষয়টি জেনে অভিযোগ করেন। আমরা তা আমলে নিয়ে মামলা রেকর্ডভূক্ত করি এবং প্রধান আসামী ভুলুকে গ্রেফতার করি। তাকে আইনি প্রক্রিয়া শেষে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

সিলেটের গোলাপগঞ্জে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৯:৫২:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২
print news -

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি:: সিলেটের গোলাপগঞ্জে খাবারের লোভ দেখিয়ে দোকানের ভেতরে নিয়ে ৬ বছর বয়সী নাতনিকে ধর্ষণ করলেন দাদা। আর এই অভিযোগে ভুলু মিয়া (৬০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ। তিনি নির্যাতনের শিকার শিশুর দাদা ও উপজেলার লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের মাঝপাড়া গ্রামের মৃত জোবেদ আলীর ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সকালে উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের বারকোট গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়- গত ১৪ মে ভুলু মিয়া খাবারের লোভ দেখিয়ে লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের চৌধুরী বাজারে তার নিজ দোকানে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনা টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেন স্থানীয় মাতব্বরা। পরে বিষয়টি জেনে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) এর নজরে আসলে সংগঠনের সিলেট বিভাগীয় সভাপতি রকিব আল মাহমুদ বাদী হয়ে ধর্ষণের শিকার শিশুর মাসহ ৬ জনকে আসামি করে গোলাপগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগটি আমলে নিয়ে থানায় রেকর্ডভুক্ত করে পুলিশ। তবে অন্য আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিলেও অভিযুক্ত দাদা পলাতক ছিলেন। অবশেষে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলামের দিকনির্দেশনায় অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার বারকোট গ্রামে অবস্থিত ধর্ষক দাদার বোনের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিয়ে একটি পক্ষ কাজ করছিল। কিন্তু মামলার বাদী বিষয়টি জেনে অভিযোগ করেন। আমরা তা আমলে নিয়ে মামলা রেকর্ডভূক্ত করি এবং প্রধান আসামী ভুলুকে গ্রেফতার করি। তাকে আইনি প্রক্রিয়া শেষে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।