১২:৫৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

‘রঙিন রূপবান’ নির্মা তা হারুনর রশিদ মা রা গেছেন

‘রঙিন রূপবান’ নির্মাতা হারুনর রশিদ মারা গেছেন

print news -

বিনোদন ডেস্ক:  ইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে প্রায় পঁচিশ দিন যাবত মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মারা গেলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা হারুনর রশিদ। বৃহস্পতিবার (১ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই নির্মাতা।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির উপ-মহাসচিব কবিরুল ইসলাম রানা এই তথ্য নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, হারুনর রশিদ বেশ কিছুদিন যাবত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

গত ৬ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে ব্রেইন স্ট্রোক করলে হারুনর রশিদকে জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শারীরিক অবস্থা গুরুতর হলে তাঁকে আইসিইউ’তে রাখা হয়। অবশেষে আর ফেরা হলো না তাঁর।

আজ বাদ জুমা নামাজে জানাজা শেষে হারুনর রশিদকে আজিমপুর কবরস্থানে তাঁর স্ত্রীর সমাধিতেই সমাহিত করা হবে। মৃত্যুকালে তিনি পরিবারে এক ছেলে ও এক মেয়েকে রেখে গেছেন।

১৯৭৬ সালে মুক্তি পায় হারুনর রশিদ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘মেঘের অনেক রং’। এ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি। মেঘের অনেক রং ছাড়াও হারুনর রশিদ পরিচালনা করেছেন ‘রঙিন রূপবান’ ও ‘গুনাইবিবি’। সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন ‘সুয়োরানী দুয়োরানী’, ‘কাঞ্চনমালা’ ও ‘রূপবান’ সিনেমাতে।

সুত্র: এনটিভি 

ট্যাগঃ

‘রঙিন রূপবান’ নির্মা তা হারুনর রশিদ মা রা গেছেন

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:৪৮:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

বিনোদন ডেস্ক:  ইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে প্রায় পঁচিশ দিন যাবত মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মারা গেলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা হারুনর রশিদ। বৃহস্পতিবার (১ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই নির্মাতা।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির উপ-মহাসচিব কবিরুল ইসলাম রানা এই তথ্য নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, হারুনর রশিদ বেশ কিছুদিন যাবত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

গত ৬ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে ব্রেইন স্ট্রোক করলে হারুনর রশিদকে জরুরি ভিত্তিতে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শারীরিক অবস্থা গুরুতর হলে তাঁকে আইসিইউ’তে রাখা হয়। অবশেষে আর ফেরা হলো না তাঁর।

আজ বাদ জুমা নামাজে জানাজা শেষে হারুনর রশিদকে আজিমপুর কবরস্থানে তাঁর স্ত্রীর সমাধিতেই সমাহিত করা হবে। মৃত্যুকালে তিনি পরিবারে এক ছেলে ও এক মেয়েকে রেখে গেছেন।

১৯৭৬ সালে মুক্তি পায় হারুনর রশিদ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘মেঘের অনেক রং’। এ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি। মেঘের অনেক রং ছাড়াও হারুনর রশিদ পরিচালনা করেছেন ‘রঙিন রূপবান’ ও ‘গুনাইবিবি’। সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন ‘সুয়োরানী দুয়োরানী’, ‘কাঞ্চনমালা’ ও ‘রূপবান’ সিনেমাতে।

সুত্র: এনটিভি