০৩:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা

  • এম এ ওমর
  • প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৮:৪৭:২৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
  • ৯৩ পড়া হয়েছেঃ
print news -

এম এ ওমর :

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ আজ বুধবার (২৯ মে) সকাল ৮টায় শুরু হয়, চলে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই ধাপে ১০৯ উপজেলায় ভোটগ্রহণের কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় রিমালের কারণে গত সোমবার ১৯টি এবং গতকাল মঙ্গলবার আরও তিন উপজেলার ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। ফলে আজ ৮৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ১৬ উপজেলায় এবং বাকিগুলোতে ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এই ধাপে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস-চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেন যারা : বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আবুল কাশেম পল্লব। বুধবার সন্ধ্যায় বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেম পল্লব কে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন। চেয়ারম্যান পদে হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল কাশেম পল্লব ২০ হাজার ১শ ৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. গৌছ উদ্দিন শালিক পাখি প্রতীকে পেয়েছেন ১৮ হাজার ৫শ ৬০ ভোট। তিনি লাউতা ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা।
ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন খান (বই) প্রতীকে ২৩ হাজার ১ শত ৬৬ ভোট পেয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন।
তার নিকটতম প্রার্থী আশরাফুল হক রুনু (বৈদ্যুতিক বাল্ব) প্রতীকে ১৩ হাজার ২ শত ৪১ ভোট পেয়েছেন।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার (ফুটবল ) প্রতীকে  ২৮ হাজার ৯শত ৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাসিনা আক্তার (হাস) ২৬ হাজার ৩শত ৫৬ ভোট পেয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাজী  শামীম  বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর ছিল। ভোটের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্তসংখ্যক পুলিশ, আনসার সদস্যের পাশাপাশি র্যাব, কোস্টগার্ড ও বিজিবি মোতায়েন ছিল। প্রতিটি ইউনিয়নে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন। ফলে উৎসবমুখর পরিবেশে এবং নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৮:৪৭:২৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪
print news -

এম এ ওমর :

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ আজ বুধবার (২৯ মে) সকাল ৮টায় শুরু হয়, চলে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই ধাপে ১০৯ উপজেলায় ভোটগ্রহণের কথা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় রিমালের কারণে গত সোমবার ১৯টি এবং গতকাল মঙ্গলবার আরও তিন উপজেলার ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। ফলে আজ ৮৭ উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ১৬ উপজেলায় এবং বাকিগুলোতে ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এই ধাপে বেসরকারি ফলাফলে চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস-চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেন যারা : বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আবুল কাশেম পল্লব। বুধবার সন্ধ্যায় বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেম পল্লব কে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন। চেয়ারম্যান পদে হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল কাশেম পল্লব ২০ হাজার ১শ ৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. গৌছ উদ্দিন শালিক পাখি প্রতীকে পেয়েছেন ১৮ হাজার ৫শ ৬০ ভোট। তিনি লাউতা ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা।
ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন খান (বই) প্রতীকে ২৩ হাজার ১ শত ৬৬ ভোট পেয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন।
তার নিকটতম প্রার্থী আশরাফুল হক রুনু (বৈদ্যুতিক বাল্ব) প্রতীকে ১৩ হাজার ২ শত ৪১ ভোট পেয়েছেন।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার (ফুটবল ) প্রতীকে  ২৮ হাজার ৯শত ৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাসিনা আক্তার (হাস) ২৬ হাজার ৩শত ৫৬ ভোট পেয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাজী  শামীম  বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর ছিল। ভোটের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্তসংখ্যক পুলিশ, আনসার সদস্যের পাশাপাশি র্যাব, কোস্টগার্ড ও বিজিবি মোতায়েন ছিল। প্রতিটি ইউনিয়নে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেন। ফলে উৎসবমুখর পরিবেশে এবং নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।