০৪:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা-বরগুনা রুটে বাকেরগঞ্জ হয়ে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ

print news -

ঢাকা-বরগুনা রুটে বাকেরগঞ্জ হয়ে সরাসরি বাস চলা-চলের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছেন দূরপাল্লার পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। সোমবার(১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টা থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। এতে বরগুনা থেকে সরাসরি ঢাকায় বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।

জানা যায়, কয়েক বছর ধরে বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়ক দিয়ে ঢাকা-বরগুনা রুটের বাস চলাচল করে আসছে। এক সময় ঢাকা থেকে বরগুনা যেতে সময় লাগত ১৫ ঘণ্টা; পদ্মা সেতু হওয়ায় এখন পাঁচ ঘণ্টায় যাওয়া যায়। কিন্তু রুট পারমিটের অজুহাতে গত ১২ আগস্ট বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়কে ঢাকা-বরগুনা রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেন বরিশালের রুপাতলী বাস মালিক ও শ্রমিকরা। তবে পটুয়াখালী-মির্জাগঞ্জ কিংবা বরগুনা-আমতলী ফেরি পার হয়ে চলাচল করছে এ রুটের দূরপাল্লার বাস। এতে সময় লাগছে পাঁচ ঘণ্টার জায়গায় ১০ ঘণ্টা। ধর্মঘটকারীরা রুপাতলী বাস মালিক এবং শ্রমিকদের বিরুদ্ধে নির্যাতন ও চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলেছেন।

বরগুনার পরিবহন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এ কে আজাদ বাবলু জানান, দীর্ঘদিন রুপাতলীর একটি চক্র বরগুনা-ঢাকা পরিবহনে চাঁদাবাজি করে আসছে। এতে হয়রানির শিকার হচ্ছেন দূরপাল্লার যাত্রীরা। কর্তৃপক্ষকে বারবার অবহিত করেও প্রতিকার মেলেনি। বাধ্য হয়েই ধর্মঘট করছি।

বরগুনার পরিবহন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক সিদ্দিকুর রহমান টুকু বলেন, রুট পারমিট না থাকার অজুহাতে বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়কে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন রুপাতলী বাস মালিক ও শ্রমিকরা। এতে দূরপাল্লার যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েছেন। তিনি বলেন, রুপাতলীর পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের কারণে পদ্মা সেতুর সুফল ভোগ করতে পারছেন না বরগুনার যাত্রীরা।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

ঢাকা-বরগুনা রুটে বাকেরগঞ্জ হয়ে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:৫৪:২৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২
print news -

ঢাকা-বরগুনা রুটে বাকেরগঞ্জ হয়ে সরাসরি বাস চলা-চলের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছেন দূরপাল্লার পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। সোমবার(১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টা থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। এতে বরগুনা থেকে সরাসরি ঢাকায় বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।

জানা যায়, কয়েক বছর ধরে বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়ক দিয়ে ঢাকা-বরগুনা রুটের বাস চলাচল করে আসছে। এক সময় ঢাকা থেকে বরগুনা যেতে সময় লাগত ১৫ ঘণ্টা; পদ্মা সেতু হওয়ায় এখন পাঁচ ঘণ্টায় যাওয়া যায়। কিন্তু রুট পারমিটের অজুহাতে গত ১২ আগস্ট বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়কে ঢাকা-বরগুনা রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেন বরিশালের রুপাতলী বাস মালিক ও শ্রমিকরা। তবে পটুয়াখালী-মির্জাগঞ্জ কিংবা বরগুনা-আমতলী ফেরি পার হয়ে চলাচল করছে এ রুটের দূরপাল্লার বাস। এতে সময় লাগছে পাঁচ ঘণ্টার জায়গায় ১০ ঘণ্টা। ধর্মঘটকারীরা রুপাতলী বাস মালিক এবং শ্রমিকদের বিরুদ্ধে নির্যাতন ও চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলেছেন।

বরগুনার পরিবহন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এ কে আজাদ বাবলু জানান, দীর্ঘদিন রুপাতলীর একটি চক্র বরগুনা-ঢাকা পরিবহনে চাঁদাবাজি করে আসছে। এতে হয়রানির শিকার হচ্ছেন দূরপাল্লার যাত্রীরা। কর্তৃপক্ষকে বারবার অবহিত করেও প্রতিকার মেলেনি। বাধ্য হয়েই ধর্মঘট করছি।

বরগুনার পরিবহন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক সিদ্দিকুর রহমান টুকু বলেন, রুট পারমিট না থাকার অজুহাতে বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়কে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন রুপাতলী বাস মালিক ও শ্রমিকরা। এতে দূরপাল্লার যাত্রীরা ভোগান্তিতে পড়েছেন। তিনি বলেন, রুপাতলীর পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের কারণে পদ্মা সেতুর সুফল ভোগ করতে পারছেন না বরগুনার যাত্রীরা।