০৫:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ফাঁস লেগে এক ছাত্রের মৃত্যু

টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ফাঁস লেগে মৃত্যু

print news -

অনলাইন ডেস্ক : ফেনীর ফুলগাজীতে টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ফাঁস লেগে পল্লব দেবনাথ (১৮) নামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার মহাদেব বাড়ির সদর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পল্লব ওই গ্রামের কেশবনাথের ছেলে। সে মুন্সীরহাট আলি আজম স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

ফুলগাজী থানা সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে পল্লব নিজ বাড়িতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে বেল্ট ও গামছা পেঁচিয়ে ফাঁস নেয়। মরদেহ উদ্ধারের সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করে পুলিশ। এতে টিকটক অ্যাপের ভিডিওতে তাকে দুবার ফাঁস নেওয়ার চেষ্টা করতে দেখা যায়। দুবারই সেই ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে সংরক্ষণ করে। তৃতীয় বারে আবার ভিডিও চালু রেখে ফাঁস দেয়। উদ্ধার করা মোবাইলের টিকটক অ্যাপে আত্মহত্যার বিষয়টি দেখা যায় বলে জানায় পুলিশ।

ওই স্কুলছাত্রের বাবা কেশবনাথ বলেন, শনিবার রাতে ফুলগাজী বাজার থেকে জিনিসপত্র কিনে নিয়ে আসে পল্লব। তারপর তার রুমে দরজা বন্ধ করে দেয়। অনেকক্ষণ দরজা বন্ধ দেখে ডাকাডাকি করলে সে দরজা খোলে না। পরে জানালা দিয়ে তাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। এরপর দরজা ভেঙে তাকে নামানো হয়।

ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মঈন উদ্দিন বলেন, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের টিকটক অ্যাপ থেকে আত্মহত্যার ভিডিও পাওয়া যায়। এতে দেখা যায়, দুবার ব্যর্থ হয়ে তৃতীয়বারের চেষ্টায় মারা যায় সে। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ফাঁস লেগে এক ছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৪:০০:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২
print news -

অনলাইন ডেস্ক : ফেনীর ফুলগাজীতে টিকটক ভিডিও বানাতে গিয়ে ফাঁস লেগে পল্লব দেবনাথ (১৮) নামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার মহাদেব বাড়ির সদর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পল্লব ওই গ্রামের কেশবনাথের ছেলে। সে মুন্সীরহাট আলি আজম স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

ফুলগাজী থানা সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে পল্লব নিজ বাড়িতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে বেল্ট ও গামছা পেঁচিয়ে ফাঁস নেয়। মরদেহ উদ্ধারের সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করে পুলিশ। এতে টিকটক অ্যাপের ভিডিওতে তাকে দুবার ফাঁস নেওয়ার চেষ্টা করতে দেখা যায়। দুবারই সেই ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে সংরক্ষণ করে। তৃতীয় বারে আবার ভিডিও চালু রেখে ফাঁস দেয়। উদ্ধার করা মোবাইলের টিকটক অ্যাপে আত্মহত্যার বিষয়টি দেখা যায় বলে জানায় পুলিশ।

ওই স্কুলছাত্রের বাবা কেশবনাথ বলেন, শনিবার রাতে ফুলগাজী বাজার থেকে জিনিসপত্র কিনে নিয়ে আসে পল্লব। তারপর তার রুমে দরজা বন্ধ করে দেয়। অনেকক্ষণ দরজা বন্ধ দেখে ডাকাডাকি করলে সে দরজা খোলে না। পরে জানালা দিয়ে তাকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। এরপর দরজা ভেঙে তাকে নামানো হয়।

ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মঈন উদ্দিন বলেন, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের টিকটক অ্যাপ থেকে আত্মহত্যার ভিডিও পাওয়া যায়। এতে দেখা যায়, দুবার ব্যর্থ হয়ে তৃতীয়বারের চেষ্টায় মারা যায় সে। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।