০৩:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে এক মাদরাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

print news -

নিউজ ডেক্স:  কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে আফসানা আক্তার রৈতি (১৬) নামে এক মাদরাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে বানিয়াচৌঁ গ্রাম থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রৈতি পার্শ্ববর্তী গোমকোট দিদারুল ইসলাম বালিকা দাখিল মাদরাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মৌকরা ইউনিয়নের বানিয়াচৌঁ গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী হারুনুর রশিদের প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে কয়েক বছর পূর্বে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। ওই সংসারে আফসানা আক্তার রৈতি নামে তাদের একজন কন্যা সন্তান রয়েছে। প্রবাসী হারুন পুনরায় বিবাহ করেন। সৎ মায়ের সংসারে বেড়ে ওঠা রৈতি একই ইউনিয়নের গোমকোট দিদারুল ইসলাম বালিকা দাখিল মাদরাসায় দশম শ্রেণিতে পড়ত।

বুধবার আনুমানিক বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সবার অগোচরে রৈতি নিজ ঘরের ছাদে ওঠে রেলিংয়ের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝাঁপ দেয়। এ সময় বাড়ির লোকজন তাকে ঝুলতে দেখে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশের উপপরিদর্শক কামাল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নাঙ্গলকোট থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফারুক হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধার করে কুমেক মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্য মামলা হয়েছে।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে এক মাদরাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৯:৩০:২৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
print news -

নিউজ ডেক্স:  কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে আফসানা আক্তার রৈতি (১৬) নামে এক মাদরাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে বানিয়াচৌঁ গ্রাম থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রৈতি পার্শ্ববর্তী গোমকোট দিদারুল ইসলাম বালিকা দাখিল মাদরাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মৌকরা ইউনিয়নের বানিয়াচৌঁ গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী হারুনুর রশিদের প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে কয়েক বছর পূর্বে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। ওই সংসারে আফসানা আক্তার রৈতি নামে তাদের একজন কন্যা সন্তান রয়েছে। প্রবাসী হারুন পুনরায় বিবাহ করেন। সৎ মায়ের সংসারে বেড়ে ওঠা রৈতি একই ইউনিয়নের গোমকোট দিদারুল ইসলাম বালিকা দাখিল মাদরাসায় দশম শ্রেণিতে পড়ত।

বুধবার আনুমানিক বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সবার অগোচরে রৈতি নিজ ঘরের ছাদে ওঠে রেলিংয়ের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝাঁপ দেয়। এ সময় বাড়ির লোকজন তাকে ঝুলতে দেখে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশের উপপরিদর্শক কামাল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

নাঙ্গলকোট থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফারুক হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধার করে কুমেক মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্য মামলা হয়েছে।