০৪:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিকে কুপ্রস্তাব ও মারধর করার অভিযোগ, গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

print news -

লালমনিরহাট জেলায়  স্বাস্থ্যকর্মীকে উত্যক্ত ও মারধর করার অভিযোগে  যুবলীগ নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন।
কাশিরাম কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি রিতা আক্তারকে কুপ্রস্তাব ও মারধর করায় অভিযুক্ত কাশিপুর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী আবুল কালাম আজাদকে গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন জেলার বিভিন্ন কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত সিএইচসিপিরা।
শনিবার (২৭ আগস্ট) জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র মিশন মোড় চত্বরে বিকেল ৪টার দিকে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
লালমনিরহাট জেলার সব কমিউনিটি ক্লিনিক-এর সিএইচসিপিদের আয়োজনে এ মানববন্ধনে জেলার অর্ধশত সিএইচসিপি সদস্য, নির্যাতনের শিকার সিএইচসিপি সদস্য ও তার পরিবার এবং স্থানীয় সচেন মহলসহ দুই শতাধিক বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে সিএইচসিপি নেতারা ও নির্যাতনের শিকার সিএইচসিপি সদস্যের স্বামী জানান, লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের একটি সরকারি কমিউনিটি ক্লিনিকের এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে উত্ত্যক্ত ও মারধর করার অভিযোগে স্থানীয় আবুল কালাম নামে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত ২২ আগস্ট রাতে সদর থানায় মামলাটি করা হয়। কিন্তু রহস্যজনক কারণে এখন পর্যন্ত আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
জানা গেছে, ভুক্তভোগী নারী কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারকে প্রায়ই রাস্তাঘাটে উত্ত্যক্ত করতেন আবুল কালাম। বিষয়টি তিনি ক্লিনিক কর্তৃপক্ষকে জানান। কর্তৃপক্ষ আবুল কালামকে এ বিষয়ে সতর্ক করে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আবুল কালাম তার তিন-চারজন সহযোগীকে নিয়ে ওই নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে নানা ভয়ভীতি দেখান।
২০ আগস্ট বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে আবুল কালাম ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এরপর তার হাতে থাকা রড দিয়ে তাকে আঘাত করেন। এতে ওই নারী ডান চোয়াল ও কানে ব্যথা পান। এ সময় সেখানে উপস্থিত লোকজন আক্রান্ত ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে রক্ষায় এগিয়ে এলে আবুল কালাম সেখান থেকে চলে যান।
এ ঘটনায় মামলা করার পরও আসামিকে গ্রেফতার না করায় হতাশ সিএইচসিপিরা। অবিলম্বে আবুল কালামকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান তারা।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন আসাদুজ্জামান, মিজানুর রহমান, প্রীতিলতা, সূবর্ণা, শাহানাজ, নাসিমা বেগম, সোহাগ, ভুক্তভোগীর স্বামী ইসরাফির আলমসহ প্রমুখ।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিকে কুপ্রস্তাব ও মারধর করার অভিযোগ, গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০২:০৮:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২২
print news -

লালমনিরহাট জেলায়  স্বাস্থ্যকর্মীকে উত্যক্ত ও মারধর করার অভিযোগে  যুবলীগ নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন।
কাশিরাম কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি রিতা আক্তারকে কুপ্রস্তাব ও মারধর করায় অভিযুক্ত কাশিপুর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী আবুল কালাম আজাদকে গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন জেলার বিভিন্ন কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত সিএইচসিপিরা।
শনিবার (২৭ আগস্ট) জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র মিশন মোড় চত্বরে বিকেল ৪টার দিকে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
লালমনিরহাট জেলার সব কমিউনিটি ক্লিনিক-এর সিএইচসিপিদের আয়োজনে এ মানববন্ধনে জেলার অর্ধশত সিএইচসিপি সদস্য, নির্যাতনের শিকার সিএইচসিপি সদস্য ও তার পরিবার এবং স্থানীয় সচেন মহলসহ দুই শতাধিক বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে সিএইচসিপি নেতারা ও নির্যাতনের শিকার সিএইচসিপি সদস্যের স্বামী জানান, লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের একটি সরকারি কমিউনিটি ক্লিনিকের এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে উত্ত্যক্ত ও মারধর করার অভিযোগে স্থানীয় আবুল কালাম নামে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত ২২ আগস্ট রাতে সদর থানায় মামলাটি করা হয়। কিন্তু রহস্যজনক কারণে এখন পর্যন্ত আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
জানা গেছে, ভুক্তভোগী নারী কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারকে প্রায়ই রাস্তাঘাটে উত্ত্যক্ত করতেন আবুল কালাম। বিষয়টি তিনি ক্লিনিক কর্তৃপক্ষকে জানান। কর্তৃপক্ষ আবুল কালামকে এ বিষয়ে সতর্ক করে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আবুল কালাম তার তিন-চারজন সহযোগীকে নিয়ে ওই নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে নানা ভয়ভীতি দেখান।
২০ আগস্ট বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে আবুল কালাম ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এরপর তার হাতে থাকা রড দিয়ে তাকে আঘাত করেন। এতে ওই নারী ডান চোয়াল ও কানে ব্যথা পান। এ সময় সেখানে উপস্থিত লোকজন আক্রান্ত ওই স্বাস্থ্যকর্মীকে রক্ষায় এগিয়ে এলে আবুল কালাম সেখান থেকে চলে যান।
এ ঘটনায় মামলা করার পরও আসামিকে গ্রেফতার না করায় হতাশ সিএইচসিপিরা। অবিলম্বে আবুল কালামকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান তারা।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন আসাদুজ্জামান, মিজানুর রহমান, প্রীতিলতা, সূবর্ণা, শাহানাজ, নাসিমা বেগম, সোহাগ, ভুক্তভোগীর স্বামী ইসরাফির আলমসহ প্রমুখ।