০৮:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন আমেরিকা ও আওয়ামী লীগের একই চাওয়া: ওবায়দুল কাদের

print news -

অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন আমেরিকা ও আওয়ামী লীগের একই চাওয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমেরিকা ও তাঁর দলের চাওয়া একই—অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। তত্ত্বাবধায়ক সরকার, শেখ হাসিনার পদত্যাগ, সংসদ ও নির্বাচন কমিশনের বিলুপ্তির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কোনো কথা বলা হয়নি।

আজ বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও আওয়ামী লীগের একই সুর। দুই পক্ষই অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়। এটা জনগণের কাছে আওয়ামী লীগের অঙ্গীকার। গণতন্ত্র আওয়ামী লীগের দীর্ঘ সংগ্রামের সোনালি ফসল। গণতন্ত্রকে নিরাপদে রাখা তাঁদের পবিত্র দায়িত্ব।

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বৈঠকে মার্কিন রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে তত্ত্বাবধায়ক সরকার, শেখ হাসিনার পদত্যাগ, সংসদ ও নির্বাচন কমিশনের বিলুপ্তির বিষয়ে কোনো কথা বলেননি।

সাম্প্রতিক সময়ে নির্বাচন নিয়ে বিদেশি কূটনৈতিকদের বক্তব্যে আওয়ামী লীগ কোনো চাপ অনুভব করছে কি না—এমন প্রশ্ন করা হয় ওবায়দুল কাদেরের কাছে। জবাবে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কেন চাপ অনুভব করবে? সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন আমাদের অঙ্গীকার। যদি বলেন, বিবেকের চাপ অনুভব করছি।’

গত মঙ্গলবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংলাপ প্রয়োজন। কমিশন মনে করে, রাজনৈতিক দলগুলোর এক টেবিলে বসা উচিত, একসঙ্গে চা পান করা উচিত। আলোচনা করে সংকট নিরসনের চেষ্টা করা উচিত।

সিইসির এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো কী করবে, সেটা তাদের ব্যাপার। এটা নির্বাচন কমিশনের বিষয় নয়। কমিশনের দায়িত্ব সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন।

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে গতকাল বুধবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ৯ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তাঁর স্ত্রী জুবাইদা রহমানকে দেওয়া হয়েছে তিন বছরের কারাদণ্ড। এই রায়ের প্রতিবাদে সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলন তো ১৪ বছর ধরেই দেখছি। খালেদা জিয়ার দণ্ডের সময় ৫০০ জনের বিক্ষোভ মিছিলও দেখি নাই। তারেক রহমানের জন্য আর কী করবে! বিএনপির দৌড় কত দূর জানা আছে।’

বৈঠক শেষে পিটার হাস সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনব্যবস্থা নিয়ে চলমান রাজনৈতিক সংকটের সমাধান কীভাবে হবে, সে প্রক্রিয়া রাজনৈতিক দলগুলোকেই নির্ধারণ করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র কোনো ধরনের সহিংসতা চায় না। অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ভূমিকা রাখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র।

আজ বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। তাঁকে স্বাগত জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাম্মী আহম্মেদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী আরাফাত। পরে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন পিটার হাস।

জনপ্রিয় সংবাদ

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন আমেরিকা ও আওয়ামী লীগের একই চাওয়া: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০২:০৭:২৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৪ অগাস্ট ২০২৩
print news -

অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন আমেরিকা ও আওয়ামী লীগের একই চাওয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমেরিকা ও তাঁর দলের চাওয়া একই—অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। তত্ত্বাবধায়ক সরকার, শেখ হাসিনার পদত্যাগ, সংসদ ও নির্বাচন কমিশনের বিলুপ্তির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কোনো কথা বলা হয়নি।

আজ বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও আওয়ামী লীগের একই সুর। দুই পক্ষই অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়। এটা জনগণের কাছে আওয়ামী লীগের অঙ্গীকার। গণতন্ত্র আওয়ামী লীগের দীর্ঘ সংগ্রামের সোনালি ফসল। গণতন্ত্রকে নিরাপদে রাখা তাঁদের পবিত্র দায়িত্ব।

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বৈঠকে মার্কিন রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে তত্ত্বাবধায়ক সরকার, শেখ হাসিনার পদত্যাগ, সংসদ ও নির্বাচন কমিশনের বিলুপ্তির বিষয়ে কোনো কথা বলেননি।

সাম্প্রতিক সময়ে নির্বাচন নিয়ে বিদেশি কূটনৈতিকদের বক্তব্যে আওয়ামী লীগ কোনো চাপ অনুভব করছে কি না—এমন প্রশ্ন করা হয় ওবায়দুল কাদেরের কাছে। জবাবে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কেন চাপ অনুভব করবে? সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন আমাদের অঙ্গীকার। যদি বলেন, বিবেকের চাপ অনুভব করছি।’

গত মঙ্গলবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংলাপ প্রয়োজন। কমিশন মনে করে, রাজনৈতিক দলগুলোর এক টেবিলে বসা উচিত, একসঙ্গে চা পান করা উচিত। আলোচনা করে সংকট নিরসনের চেষ্টা করা উচিত।

সিইসির এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো কী করবে, সেটা তাদের ব্যাপার। এটা নির্বাচন কমিশনের বিষয় নয়। কমিশনের দায়িত্ব সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন।

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে গতকাল বুধবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ৯ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তাঁর স্ত্রী জুবাইদা রহমানকে দেওয়া হয়েছে তিন বছরের কারাদণ্ড। এই রায়ের প্রতিবাদে সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলন তো ১৪ বছর ধরেই দেখছি। খালেদা জিয়ার দণ্ডের সময় ৫০০ জনের বিক্ষোভ মিছিলও দেখি নাই। তারেক রহমানের জন্য আর কী করবে! বিএনপির দৌড় কত দূর জানা আছে।’

বৈঠক শেষে পিটার হাস সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনব্যবস্থা নিয়ে চলমান রাজনৈতিক সংকটের সমাধান কীভাবে হবে, সে প্রক্রিয়া রাজনৈতিক দলগুলোকেই নির্ধারণ করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র কোনো ধরনের সহিংসতা চায় না। অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে ভূমিকা রাখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র।

আজ বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। তাঁকে স্বাগত জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাম্মী আহম্মেদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী আরাফাত। পরে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন পিটার হাস।