১১:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করতে আগ্রহী।

ভারত বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করতে আগ্রহী।

print news -

নিউজ ডেস্ক:  স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন যে ভারত সেতু, কালভার্ট ও রাস্তা নির্মাণসহ বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে তাঁর কার্যালয়ে সম্প্রতি ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মার সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

হাইকমিশনারের সঙ্গে আলোচিত বিষয়গুলি সম্পর্কে সাংবাদিকদের জিজ্ঞাসার জবাবে মন্ত্রী জানান, প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে উভয় দেশের নাগরিকদের কল্যাণ বাড়ানোর উপায়গুলি আলোচনা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের নানা দিক নিয়েও আলোচনা হয়। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ আছে, তাদের পঞ্চায়েত আছে। আমাদের উপজেলা পরিষদ তাদের উপজেলা পরিষদের মতোই। আলোচনা কীভাবে তাদের কার্যকারিতা, তাদের কার্যকলাপ ও আমাদের নিজস্ব অনুশীলনগুলিকে আরও উন্নত করা যায়, সেই বিষয়ের উপরই কেন্দ্রীভূত ছিল।

তিনি বলেন, “আমরা শুধু ভারতের কাছ থেকে শিখবো না, তারাও আমাদের কাছ থেকে শিখবে। এই বিষয়গুলোও আলোচনা হয়েছে। এই আলোচনার মধ্য দিয়ে আমরা আরও কার্যকর পদ্ধতি চিহ্নিত করতে সক্ষম হব বলে আশা করছি। একে অপরের কর্মীদের প্রশিক্ষণের বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়েছে।”

বিনিয়োগ আলোচনার বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ভারত বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী। তারা এখানে অবকাঠামো উন্নয়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। যেমন, তারা আমাদের বাজার ব্যবস্থাপনা ও কৃষি খামারের প্রতি আগ্রহী। আমরা তাদের ও আমাদের সফলতার ক্ষেত্রগুলিকে চিহ্নিত করে সেই ক্ষেত্রগুলিতে অভিজ্ঞতা বিনিময় করব।

মন্ত্রী বলেন, স্থানীয় সরকারের আওতাভুক্ত সেতু, কালভার্ট ও রাস্তা উন্নয়নে তারা সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এজন্য তারা আর্থিক সহায়তা দেবে। এছাড়াও, আমরা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করছি। কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ এখন এডিস মশার প্রকোপের মুখোমুখি হচ্ছে। ফলে, আমরা সেই প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করতে আগ্রহী।

তিনি বলেন, “আজকের আলোচনার ভিত্তিতে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে যা যা উন্নয়নমূলক প্রকল্প হাতে নেওয়া হতে পারে সেগুলি পর্যালোচনা করে জানিয়ে দেব। তারা সেগুলির জন্য অর্থায়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

কালভার্ট ও রাস্তা উন্নয়নে তারা সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এজন্য তারা আর্থিক সহায়তা দেবে। এছাড়াও, আমরা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করছি। কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ এখন এডিস মশার প্রকোপের মুখোমুখি হচ্ছে। ফলে, আমরা সেই প্রকোপ নিয়

 

https://youtube.com/shorts/Nxv7f80jlI0?feature=share

জনপ্রিয় সংবাদ

মুক্তিযুদ্ধা সংগঠক আব্দুর রাজ্জাকের ইন্তেকাল।। বিশিষ্টজনের শোক প্রকাশ

ভারত বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করতে আগ্রহী।

প্রকাশিত হয়েছেঃ ১২:০৫:১১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

নিউজ ডেস্ক:  স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন যে ভারত সেতু, কালভার্ট ও রাস্তা নির্মাণসহ বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে তাঁর কার্যালয়ে সম্প্রতি ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মার সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন।

হাইকমিশনারের সঙ্গে আলোচিত বিষয়গুলি সম্পর্কে সাংবাদিকদের জিজ্ঞাসার জবাবে মন্ত্রী জানান, প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে উভয় দেশের নাগরিকদের কল্যাণ বাড়ানোর উপায়গুলি আলোচনা হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসনের নানা দিক নিয়েও আলোচনা হয়। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ আছে, তাদের পঞ্চায়েত আছে। আমাদের উপজেলা পরিষদ তাদের উপজেলা পরিষদের মতোই। আলোচনা কীভাবে তাদের কার্যকারিতা, তাদের কার্যকলাপ ও আমাদের নিজস্ব অনুশীলনগুলিকে আরও উন্নত করা যায়, সেই বিষয়ের উপরই কেন্দ্রীভূত ছিল।

তিনি বলেন, “আমরা শুধু ভারতের কাছ থেকে শিখবো না, তারাও আমাদের কাছ থেকে শিখবে। এই বিষয়গুলোও আলোচনা হয়েছে। এই আলোচনার মধ্য দিয়ে আমরা আরও কার্যকর পদ্ধতি চিহ্নিত করতে সক্ষম হব বলে আশা করছি। একে অপরের কর্মীদের প্রশিক্ষণের বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়েছে।”

বিনিয়োগ আলোচনার বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ভারত বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী। তারা এখানে অবকাঠামো উন্নয়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। যেমন, তারা আমাদের বাজার ব্যবস্থাপনা ও কৃষি খামারের প্রতি আগ্রহী। আমরা তাদের ও আমাদের সফলতার ক্ষেত্রগুলিকে চিহ্নিত করে সেই ক্ষেত্রগুলিতে অভিজ্ঞতা বিনিময় করব।

মন্ত্রী বলেন, স্থানীয় সরকারের আওতাভুক্ত সেতু, কালভার্ট ও রাস্তা উন্নয়নে তারা সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এজন্য তারা আর্থিক সহায়তা দেবে। এছাড়াও, আমরা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করছি। কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ এখন এডিস মশার প্রকোপের মুখোমুখি হচ্ছে। ফলে, আমরা সেই প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করতে আগ্রহী।

তিনি বলেন, “আজকের আলোচনার ভিত্তিতে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে যা যা উন্নয়নমূলক প্রকল্প হাতে নেওয়া হতে পারে সেগুলি পর্যালোচনা করে জানিয়ে দেব। তারা সেগুলির জন্য অর্থায়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

কালভার্ট ও রাস্তা উন্নয়নে তারা সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এজন্য তারা আর্থিক সহায়তা দেবে। এছাড়াও, আমরা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করছি। কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ এখন এডিস মশার প্রকোপের মুখোমুখি হচ্ছে। ফলে, আমরা সেই প্রকোপ নিয়

 

https://youtube.com/shorts/Nxv7f80jlI0?feature=share