০১:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাবাকে হ ত্যা করে ছেলে বললো ‘আমি আমেরিকা র প্রেসিডেন্ট’

বাবাকে হত্যা করে ছেলে বললো ‘আমি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট’

print news -

নিউজ ডেস্ক:  নিজের বাবাকে গলা কেটে হত্যার পর সেই ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশ করেছেন ৩২ বছর বয়সী ছেলে। এমনকি হত্যার শিকার ব্যক্তির কাটা মাথা দেখিয়ে রাজনৈতিক বক্তব্যও দিয়েছেন অভিযুক্ত।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় ঘটেছে চাঞ্চল্যকর এমন ঘটনা। এরপরই ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

পেনসিলভানিয়ার সরকারি কর্মকর্তা ও আদালতের নথির বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, বাবার গলা কেটে সেই ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশ করেন জাস্টিন মোন নামের ৩২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। কিছু সময় পর ওই ভিডিও সরিয়ে নেয় ইউটিউব। তবে এর মধ্যেই ভিডিওটি দেখেন বহু মানুষ।

পরে মার্কিন ন্যাশনাল গার্ড ঘাঁটির কাছ থেকে বন্দুকসহ জাস্টিনকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও মরদেহকে অসম্মানসহ বেশ কিছু অভিযোগ আনা হয়েছে।

 
জানা গেছে, জাস্টিনের বাবা মাইকেল মোন মার্কিন সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরে কাজ করতেন। মাইকেলের শিরশ্ছেদের পর তার কাটা মাথা হাতে নিয়ে ভিডিও তৈরি করেন জাস্টিন। এ সময় তিনি দীর্ঘ রাজনৈতিক বক্তব্য দেন, যার মূল লক্ষ্যই ছিল বাইডেন প্রশাসন।
 
বক্তব্যে জাস্টিন নিজেকে ‘আমেরিকার প্রেসিডেন্ট’ হিসেবেও দাবি করেন। জানান, সামরিক আইনের অধীনে তিনি এখন আমেরিকার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট। আর নিজের বাবা মাইকেলকে অভিহিত করেন ‘বিশ্বাসঘাতক’ হিসেবে।

এমন সময়ে এ ঘটনা ঘটল, যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ নানা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত এবং যখন সামাজিক মাধ্যমের দায়িত্বশীলতা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। এ বিষয়ে এফবিআইয়ের সাবেক উপপরিচালক ও সিএনএনের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিশ্লেষক অ্যান্ড্রু ম্যাককেব বলছেন, 

এটি ভীষণ উদ্বেগজনক। সামনে আমাদের জন্য ভীষণ উত্তেজনাকর এক রাজনৈতিক মৌসুম অপেক্ষা করছে।

পেনসিলভানিয়ার বাকস কাউন্টির ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ধড় থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন এক পুরুষের (মাইকেল মোন) মরদেহ পাওয়ার খবর আসে। নিহত ব্যক্তির স্ত্রী জরুরি সেবা নম্বরে ফোন করে বিষয়টি জানিয়েছিলেন। 
 
পরে ভিডিও থেকেই হত্যাকারী সম্পর্কে নিশ্চিত হয় পুলিশ। ভিডিওতে জাস্টিন মোন নিজের পরিচয় দিয়ে একটি লিখিত বিবৃতি পাঠ করেন। এ সময় তিনি বলেন, তার বাবা দেশের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। জাস্টিনের ভাষ্য, 

    আমেরিকা একেবারে ভেতর থেকে পঁচে যাচ্ছে। অতিবামেরা আমাদের এক সময়ের সমৃদ্ধ শহরগুলোকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

 

সুত্র: সময় টিভি

ট্যাগঃ

বাবাকে হ ত্যা করে ছেলে বললো ‘আমি আমেরিকা র প্রেসিডেন্ট’

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:২৩:৩৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

নিউজ ডেস্ক:  নিজের বাবাকে গলা কেটে হত্যার পর সেই ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশ করেছেন ৩২ বছর বয়সী ছেলে। এমনকি হত্যার শিকার ব্যক্তির কাটা মাথা দেখিয়ে রাজনৈতিক বক্তব্যও দিয়েছেন অভিযুক্ত।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ায় ঘটেছে চাঞ্চল্যকর এমন ঘটনা। এরপরই ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

পেনসিলভানিয়ার সরকারি কর্মকর্তা ও আদালতের নথির বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, বাবার গলা কেটে সেই ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশ করেন জাস্টিন মোন নামের ৩২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। কিছু সময় পর ওই ভিডিও সরিয়ে নেয় ইউটিউব। তবে এর মধ্যেই ভিডিওটি দেখেন বহু মানুষ।

পরে মার্কিন ন্যাশনাল গার্ড ঘাঁটির কাছ থেকে বন্দুকসহ জাস্টিনকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও মরদেহকে অসম্মানসহ বেশ কিছু অভিযোগ আনা হয়েছে।

 
জানা গেছে, জাস্টিনের বাবা মাইকেল মোন মার্কিন সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরে কাজ করতেন। মাইকেলের শিরশ্ছেদের পর তার কাটা মাথা হাতে নিয়ে ভিডিও তৈরি করেন জাস্টিন। এ সময় তিনি দীর্ঘ রাজনৈতিক বক্তব্য দেন, যার মূল লক্ষ্যই ছিল বাইডেন প্রশাসন।
 
বক্তব্যে জাস্টিন নিজেকে ‘আমেরিকার প্রেসিডেন্ট’ হিসেবেও দাবি করেন। জানান, সামরিক আইনের অধীনে তিনি এখন আমেরিকার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট। আর নিজের বাবা মাইকেলকে অভিহিত করেন ‘বিশ্বাসঘাতক’ হিসেবে।

এমন সময়ে এ ঘটনা ঘটল, যখন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ নানা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত এবং যখন সামাজিক মাধ্যমের দায়িত্বশীলতা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। এ বিষয়ে এফবিআইয়ের সাবেক উপপরিচালক ও সিএনএনের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বিশ্লেষক অ্যান্ড্রু ম্যাককেব বলছেন, 

এটি ভীষণ উদ্বেগজনক। সামনে আমাদের জন্য ভীষণ উত্তেজনাকর এক রাজনৈতিক মৌসুম অপেক্ষা করছে।

পেনসিলভানিয়ার বাকস কাউন্টির ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ধড় থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন এক পুরুষের (মাইকেল মোন) মরদেহ পাওয়ার খবর আসে। নিহত ব্যক্তির স্ত্রী জরুরি সেবা নম্বরে ফোন করে বিষয়টি জানিয়েছিলেন। 
 
পরে ভিডিও থেকেই হত্যাকারী সম্পর্কে নিশ্চিত হয় পুলিশ। ভিডিওতে জাস্টিন মোন নিজের পরিচয় দিয়ে একটি লিখিত বিবৃতি পাঠ করেন। এ সময় তিনি বলেন, তার বাবা দেশের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। জাস্টিনের ভাষ্য, 

    আমেরিকা একেবারে ভেতর থেকে পঁচে যাচ্ছে। অতিবামেরা আমাদের এক সময়ের সমৃদ্ধ শহরগুলোকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

 

সুত্র: সময় টিভি