০১:১৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিকটক ভিডিও তে জনপ্রিয় শিল্পীদের গা ন ব্যবহারে জটিলতা

print news -

টিকটক ভিডিওকে আকর্ষণীয় করে তুলতে টেইলর সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, দ্য উইক্যান, ড্রেক ও কোল্ড প্লের মতো জনপ্রিয় শিল্পী ও ব্যান্ডের গান ব্যবহার করেন অনেকেই। টিকটকের জন্য তৈরি ভিডিওতে এসব শিল্পীদের গান ব্যবহারের সুযোগ দিতে টিকটকের সঙ্গে গানগুলোর পরিবেশক সংস্থা ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের (ইউএমজি) চুক্তিও রয়েছে। তবে টিকটকের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে এ চুক্তি বাতিল করতে পারে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ। এরই মধ্যে টিকটকের নির্বাচিত গানের তালিকা থেকে নিজেদের গানগুলো সরিয়ে ফেলার প্রস্তুতিও নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ফলে চুক্তি বাতিল হলে টিকটকের কোনো ভিডিওতে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের তালিকাভুক্ত কোনো শিল্পীর গান ব্যবহার করা যাবে না।

https://youtube.com/shorts/EQFjJ4rU2N4?feature=share

জানা গেছে, টিকটকের সঙ্গে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের চুক্তির মেয়াদ গতকাল বুধবার শেষ হয়েছে। চুক্তি নবায়নের জন্য টিকটককে বেশ কয়েকটি শর্তও জুড়ে দিয়েছে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ। যদিও এসব শর্ত মানতে নারাজ টিকটক। আর তাই ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ সংগীতশিল্পী এবং গীতিকারদের উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি প্রকাশ করেছে। সেখানে টিকটকের বিরুদ্ধাচরণ করে বলা হয়েছে, অন্য প্ল্যাটফর্মের তুলনায় শিল্পীদের কম অর্থ দেয় টিকটক। তবে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের বক্তব্য নাকচ করে দিয়ে টিকটক জানিয়েছে, ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ নিজেদের স্বার্থে শিল্পী ও গীতিকারদের নাম ব্যবহার করছে।

বিশ্বের সংগীত বাজারের এক-তৃতীয়াংশই রয়েছে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের দখলে। টেইলর সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, কোল্ড প্লে, দ্য উইক্যান ও ড্রেকের মতো জনপ্রিয় শিল্পীরা ইউনিভার্সালের হয়ে গান করেন। ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের সঙ্গে চুক্তির আওতায় তাদের গান থেকে টিকটকের আয়ের মাত্র ১ শতাংশ অর্থ পান তারা।

ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ জানিয়েছে, চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন শর্তই মানলেই শুধু নতুন করে টিকটকের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করা হতে পারে। অন্যথায়, টিকটক থেকে নিজেদের গান সরিয়ে ফেলা হবে। ফলে টেইলট সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, দ্য উইক্যানের মতো শিল্পীদের গান আর টিকটকে পাওয়া যাবে না।

সুত্র: প্রথম আলো

ট্যাগঃ

নরসিংদী কারাগার থেকে পালানো জঙ্গি  সদস্য সোনারগাঁওয়ে গ্রেপ্তার

টিকটক ভিডিও তে জনপ্রিয় শিল্পীদের গা ন ব্যবহারে জটিলতা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৫:৫৬:০৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

টিকটক ভিডিওকে আকর্ষণীয় করে তুলতে টেইলর সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, দ্য উইক্যান, ড্রেক ও কোল্ড প্লের মতো জনপ্রিয় শিল্পী ও ব্যান্ডের গান ব্যবহার করেন অনেকেই। টিকটকের জন্য তৈরি ভিডিওতে এসব শিল্পীদের গান ব্যবহারের সুযোগ দিতে টিকটকের সঙ্গে গানগুলোর পরিবেশক সংস্থা ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের (ইউএমজি) চুক্তিও রয়েছে। তবে টিকটকের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে এ চুক্তি বাতিল করতে পারে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ। এরই মধ্যে টিকটকের নির্বাচিত গানের তালিকা থেকে নিজেদের গানগুলো সরিয়ে ফেলার প্রস্তুতিও নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ফলে চুক্তি বাতিল হলে টিকটকের কোনো ভিডিওতে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের তালিকাভুক্ত কোনো শিল্পীর গান ব্যবহার করা যাবে না।

https://youtube.com/shorts/EQFjJ4rU2N4?feature=share

জানা গেছে, টিকটকের সঙ্গে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের চুক্তির মেয়াদ গতকাল বুধবার শেষ হয়েছে। চুক্তি নবায়নের জন্য টিকটককে বেশ কয়েকটি শর্তও জুড়ে দিয়েছে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ। যদিও এসব শর্ত মানতে নারাজ টিকটক। আর তাই ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ সংগীতশিল্পী এবং গীতিকারদের উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি প্রকাশ করেছে। সেখানে টিকটকের বিরুদ্ধাচরণ করে বলা হয়েছে, অন্য প্ল্যাটফর্মের তুলনায় শিল্পীদের কম অর্থ দেয় টিকটক। তবে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের বক্তব্য নাকচ করে দিয়ে টিকটক জানিয়েছে, ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ নিজেদের স্বার্থে শিল্পী ও গীতিকারদের নাম ব্যবহার করছে।

বিশ্বের সংগীত বাজারের এক-তৃতীয়াংশই রয়েছে ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের দখলে। টেইলর সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, কোল্ড প্লে, দ্য উইক্যান ও ড্রেকের মতো জনপ্রিয় শিল্পীরা ইউনিভার্সালের হয়ে গান করেন। ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপের সঙ্গে চুক্তির আওতায় তাদের গান থেকে টিকটকের আয়ের মাত্র ১ শতাংশ অর্থ পান তারা।

ইউনিভার্সাল মিউজিক গ্রুপ জানিয়েছে, চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন শর্তই মানলেই শুধু নতুন করে টিকটকের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করা হতে পারে। অন্যথায়, টিকটক থেকে নিজেদের গান সরিয়ে ফেলা হবে। ফলে টেইলট সুইফট, জাস্টিন বিবার, আরিয়ানা গ্রান্ডে, দ্য উইক্যানের মতো শিল্পীদের গান আর টিকটকে পাওয়া যাবে না।

সুত্র: প্রথম আলো