০৫:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৌদি আরবে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে দেশে ফিরেছেন এক তরুণী

print news -

সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার তরুণী শিল্পী আক্তার দেশে ফিরেছেন। তার দেশে ফেরায় আনন্দে আত্মহারা পরিবারের সদস্যরা। আনন্দের শেষ নেই শিল্পী আক্তারের মধ্যেও। মঙ্গলবার রাতে তিনি বাড়ি ফিরেছেন।
বুধবার (১৭ আগস্ট) বিষয়টি নিশ্চিত করেন তার বড় ভাই লিটন মিয়া। শিল্পী আক্তার হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের তৈইগাঁও গ্রামের আব্দুল মজিদের মেয়ে।
শিল্পীর বড় ভাই লিটন মিয়া বলেন, আমার বোনকে দেশে আসার কথা বললেই তারা নির্যাতন করতো। মারধর করতো। ঘরে আটকে রাখতো। দেশে ফোনে কথা বলতে দিতো না। এখন আমার বোন ভালো আছে। গত ১৪ আগস্ট সে দেশে ফিরেছে। আর মঙ্গলবার রাতে বাড়ি পৌঁছেছে।

তার বাবা আব্দুল মজিদ বলেন, সৌদি আরবে মেয়েটি দুরবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। তাকে মারধর করতো মালিক। ঠিকমতো খেতে দিতো না। সরকার, সৌদি দূতাবাস ও সাংবাদিকদের কারণে দ্রুত মেয়েকে ফিরে পেয়েছি। সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে শিল্পী আক্তার বলেন, মালিক ও তার পরিবারের সদস্যরা অমানবিক নির্যাতন করতো। খাবার দিতো না। ভুল-ত্রুটি হলেই লাঠি দিয়ে পেটাতো, গালিগালাজ করতো। এমনকি মা-বাবার সঙ্গেও যোগাযোগ করতে দিতো না। দেশে ফেরার সময় সব জিনিসপত্র রেখে দিয়েছে তারা।

আহম্মদাবাদ ইউপির ১নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুর রউফ বলেন, দুদিন আগে মেয়েটি বাড়ি ফিরেছে। বিষয়টি শুনে আমাদেরও ভালো লাগছে। আমরাও এতে খুশি হয়েছি। একজন গরিব মানুষ বিদেশে কষ্ট করছিল এটি শুনে আমাদেরও খারাপ লাগছিল।
চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিদ্ধার্থ ভৌমিক বলেন, মেয়েটি দেশে ফিরেছে শুনে ভালো লাগছে। বিষয়টি জানার পর আমাদের খুব খারাপ লাগছিল। আমি বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেছি।

সৌদি আরবে মালিক ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের তরুণী শিল্পী আক্তার এমন একটি ভিডিও কয়েকদিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর তাকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত তিনি উদ্ধার হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

সৌদি আরবে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে দেশে ফিরেছেন এক তরুণী

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৯:২২:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২
print news -

সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার তরুণী শিল্পী আক্তার দেশে ফিরেছেন। তার দেশে ফেরায় আনন্দে আত্মহারা পরিবারের সদস্যরা। আনন্দের শেষ নেই শিল্পী আক্তারের মধ্যেও। মঙ্গলবার রাতে তিনি বাড়ি ফিরেছেন।
বুধবার (১৭ আগস্ট) বিষয়টি নিশ্চিত করেন তার বড় ভাই লিটন মিয়া। শিল্পী আক্তার হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের তৈইগাঁও গ্রামের আব্দুল মজিদের মেয়ে।
শিল্পীর বড় ভাই লিটন মিয়া বলেন, আমার বোনকে দেশে আসার কথা বললেই তারা নির্যাতন করতো। মারধর করতো। ঘরে আটকে রাখতো। দেশে ফোনে কথা বলতে দিতো না। এখন আমার বোন ভালো আছে। গত ১৪ আগস্ট সে দেশে ফিরেছে। আর মঙ্গলবার রাতে বাড়ি পৌঁছেছে।

তার বাবা আব্দুল মজিদ বলেন, সৌদি আরবে মেয়েটি দুরবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। তাকে মারধর করতো মালিক। ঠিকমতো খেতে দিতো না। সরকার, সৌদি দূতাবাস ও সাংবাদিকদের কারণে দ্রুত মেয়েকে ফিরে পেয়েছি। সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে শিল্পী আক্তার বলেন, মালিক ও তার পরিবারের সদস্যরা অমানবিক নির্যাতন করতো। খাবার দিতো না। ভুল-ত্রুটি হলেই লাঠি দিয়ে পেটাতো, গালিগালাজ করতো। এমনকি মা-বাবার সঙ্গেও যোগাযোগ করতে দিতো না। দেশে ফেরার সময় সব জিনিসপত্র রেখে দিয়েছে তারা।

আহম্মদাবাদ ইউপির ১নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুর রউফ বলেন, দুদিন আগে মেয়েটি বাড়ি ফিরেছে। বিষয়টি শুনে আমাদেরও ভালো লাগছে। আমরাও এতে খুশি হয়েছি। একজন গরিব মানুষ বিদেশে কষ্ট করছিল এটি শুনে আমাদেরও খারাপ লাগছিল।
চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিদ্ধার্থ ভৌমিক বলেন, মেয়েটি দেশে ফিরেছে শুনে ভালো লাগছে। বিষয়টি জানার পর আমাদের খুব খারাপ লাগছিল। আমি বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ করেছি।

সৌদি আরবে মালিক ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের তরুণী শিল্পী আক্তার এমন একটি ভিডিও কয়েকদিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর তাকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিভিন্ন দপ্তরে যোগাযোগ শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত তিনি উদ্ধার হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।