১১:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিলেটের বিয়ানীবাজারে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

print news -

সিলেট অফিস: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিনের উপর সন্ত্রাশী হামলা করা হয়েছে। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা তার উপর অতর্কিতভাবে এই হামলা করেছে, এমনটাই দাবি করছেন এলাকাবাসী ও জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের নেতৃবৃন্দ।

২৬ ডিসেম্বর ২০২১ইং(রোববার)৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জোর পূর্বক কেন্দ্র দখল করাকে কেন্দ্র করে উৎপেতে থাকা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা মো: জসিম উদ্দিন কে ধাওয়া করে। এ নিয়ে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে কেন্দ্র ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা বলে এবং মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। তখন ছাত্রলীগের নামধারী সন্ত্রাসীরা থাকে মারধর করে। তিনি প্রান রক্ষার্থে ছোট কাল থেকে বেড়ে উঠা জসিম তাহার মামার বাড়ীতে চলে গেলে সেখানে তারা হামলা চালায়। তার উপর হামলা চালায়, ঘর-বাড়ী ভাংচুর করে,৪ লক্ষ টাকার মালামাল লুটপাট করে। হামলায় জসিম উদ্দিনের বাম হাতের হাড় ভেঙ্গে গেছে,দুই পায়ে ও ডান হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতসহ সারা শরীরে গুরতর জখম হয়।পরে প্রত্যেক্ষদর্শীরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সিলেট এম.এ.জি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। তিনি বর্তমানে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় থমতমে অবস্থা বিরাজ করছে।এদিকে হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদল বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখা ও সিলেট জেলা নেতৃবৃন্দ। মো: জসিম উদ্দিন বিয়ানীবাজার উপজেলার  ৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ডের পাতন আব্দুল্লাপুর গ্রামের মো: আব্দুল মানিকের ছেলে।

এ ঘটনায় আহতের পক্ষে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা করতে গেলে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের চাপে মামলা গ্রহন করা হয়নি।এ ব্যপারে জিজ্ঞেস করলে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়,সু-বিচারের সার্থে আমরা আদালতের স্বরনাপন্ন হবো।

জানাগেছে,তিনি ৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬নং ওয়ার্ড় এর ইউ/পি সদস্য হিসেবে অংশ নেন। তাহার প্রতিপক্ষ হিসেবে অংশগ্রহন করেন আওয়ামীলীগের দলিয় প্রার্থী সাবেক মেম্বার আব্দুর রহমান। দুপুর ১.০০ ঘটিকায় ছাত্রলীগের কয়েক জন মারমুখি নামধারী ছাত্রলীগ কর্মী নিয়ে কেন্দ্র দখল করে কয়েকশ জাল ভোট প্রধান করেন। তাতে এলাকার জনগন বাধা প্রধান করেন। প্রার্থী হিসেবে জসিম সবার অংশ গ্রহন মূলক শান্তি পূর্ন ভোটের আশা প্রকাশ করেন কিন্তু তাহাদের মারমুখি অবস্থান দমিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি। সন্ধায় ভোট গণনার সময় জোরকরে ভোট গণনা কক্ষে প্রবেশ করেন দল-বল নিয়ে। ব্যালট ছিনতাই সহ নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে ২ ভোটে নিজেকে বিজয়ী বলে ঘোষনা করার জন্য প্রিসাইডিং অফিসারকে নির্দেশ দেন। এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে এমন নারকিয় ঘটনা ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান। প্রত্যক্ষদর্শিরা আরোও জানায় জমিস উদ্দিন বিশাল ব্যাবধানে বিজয়ী হওয়ায় এমন নেক্ষার জনক ঘঠনা ঘটিয়েছে।

এমন ঘঠনায় রিটার্নিং অফিসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উক্ত সেন্টারের দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং অফিসার ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে আমার আলাপ হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

সিলেটের বিয়ানীবাজারে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৫:৪১:৪৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২১
print news -

সিলেট অফিস: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিনের উপর সন্ত্রাশী হামলা করা হয়েছে। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা তার উপর অতর্কিতভাবে এই হামলা করেছে, এমনটাই দাবি করছেন এলাকাবাসী ও জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের নেতৃবৃন্দ।

২৬ ডিসেম্বর ২০২১ইং(রোববার)৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জোর পূর্বক কেন্দ্র দখল করাকে কেন্দ্র করে উৎপেতে থাকা ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা মো: জসিম উদ্দিন কে ধাওয়া করে। এ নিয়ে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে কেন্দ্র ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা বলে এবং মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। তখন ছাত্রলীগের নামধারী সন্ত্রাসীরা থাকে মারধর করে। তিনি প্রান রক্ষার্থে ছোট কাল থেকে বেড়ে উঠা জসিম তাহার মামার বাড়ীতে চলে গেলে সেখানে তারা হামলা চালায়। তার উপর হামলা চালায়, ঘর-বাড়ী ভাংচুর করে,৪ লক্ষ টাকার মালামাল লুটপাট করে। হামলায় জসিম উদ্দিনের বাম হাতের হাড় ভেঙ্গে গেছে,দুই পায়ে ও ডান হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতসহ সারা শরীরে গুরতর জখম হয়।পরে প্রত্যেক্ষদর্শীরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সিলেট এম.এ.জি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। তিনি বর্তমানে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় থমতমে অবস্থা বিরাজ করছে।এদিকে হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদল বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখা ও সিলেট জেলা নেতৃবৃন্দ। মো: জসিম উদ্দিন বিয়ানীবাজার উপজেলার  ৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ডের পাতন আব্দুল্লাপুর গ্রামের মো: আব্দুল মানিকের ছেলে।

এ ঘটনায় আহতের পক্ষে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা করতে গেলে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের চাপে মামলা গ্রহন করা হয়নি।এ ব্যপারে জিজ্ঞেস করলে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়,সু-বিচারের সার্থে আমরা আদালতের স্বরনাপন্ন হবো।

জানাগেছে,তিনি ৯নং মুল্লাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬নং ওয়ার্ড় এর ইউ/পি সদস্য হিসেবে অংশ নেন। তাহার প্রতিপক্ষ হিসেবে অংশগ্রহন করেন আওয়ামীলীগের দলিয় প্রার্থী সাবেক মেম্বার আব্দুর রহমান। দুপুর ১.০০ ঘটিকায় ছাত্রলীগের কয়েক জন মারমুখি নামধারী ছাত্রলীগ কর্মী নিয়ে কেন্দ্র দখল করে কয়েকশ জাল ভোট প্রধান করেন। তাতে এলাকার জনগন বাধা প্রধান করেন। প্রার্থী হিসেবে জসিম সবার অংশ গ্রহন মূলক শান্তি পূর্ন ভোটের আশা প্রকাশ করেন কিন্তু তাহাদের মারমুখি অবস্থান দমিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি। সন্ধায় ভোট গণনার সময় জোরকরে ভোট গণনা কক্ষে প্রবেশ করেন দল-বল নিয়ে। ব্যালট ছিনতাই সহ নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে ২ ভোটে নিজেকে বিজয়ী বলে ঘোষনা করার জন্য প্রিসাইডিং অফিসারকে নির্দেশ দেন। এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে এমন নারকিয় ঘটনা ঘটেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান। প্রত্যক্ষদর্শিরা আরোও জানায় জমিস উদ্দিন বিশাল ব্যাবধানে বিজয়ী হওয়ায় এমন নেক্ষার জনক ঘঠনা ঘটিয়েছে।

এমন ঘঠনায় রিটার্নিং অফিসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উক্ত সেন্টারের দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং অফিসার ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে আমার আলাপ হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।