০৫:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সন্তান প্রসবে র পর হাসপাতালেই আত্ম হ ত্যা করলেন গৃহবধূ!

print news -

নিউজ ডেস্ক:  সন্তান প্রসবের পাঁচ দিন পর হাসপাতালেই গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক গৃহবধূ। মানসিক অবসাদে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সোমবার সকালে পুলিশ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করেছে।

আত্মঘাতী ওই গৃহবধূর নাম পায়েল সিংহ। তিনি পুরুলিয়ার বেঁকো গ্রামের বাসিন্দা।

হাসপাতাল সূত্রের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গত ২০ ডিসেম্বর পায়েল হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি হন। ওই দিনই কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। জন্মের পরই অসুস্থতার কারণে সদ্যোজাতকে ‘সিক নিউবর্ন কেয়ার’ ইউনিটে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে ভেন্টিলেশনে রেখে তার চিকিৎসা চলছে।

পরিবার জানিয়েছে, শিশুটির শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন পায়েল। সোমবার সকালে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের তিন তলায় সিঁড়িতে ওঠার শেষ ধাপে রেলিংয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানিয়েছে, মানসিক অবসাদের কারণেই পায়েল আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হয়েছে।

ট্যাগঃ

সন্তান প্রসবে র পর হাসপাতালেই আত্ম হ ত্যা করলেন গৃহবধূ!

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৪:০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩
print news -

নিউজ ডেস্ক:  সন্তান প্রসবের পাঁচ দিন পর হাসপাতালেই গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক গৃহবধূ। মানসিক অবসাদে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সোমবার সকালে পুলিশ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করেছে।

আত্মঘাতী ওই গৃহবধূর নাম পায়েল সিংহ। তিনি পুরুলিয়ার বেঁকো গ্রামের বাসিন্দা।

হাসপাতাল সূত্রের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গত ২০ ডিসেম্বর পায়েল হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি হন। ওই দিনই কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। জন্মের পরই অসুস্থতার কারণে সদ্যোজাতকে ‘সিক নিউবর্ন কেয়ার’ ইউনিটে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে ভেন্টিলেশনে রেখে তার চিকিৎসা চলছে।

পরিবার জানিয়েছে, শিশুটির শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন পায়েল। সোমবার সকালে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের তিন তলায় সিঁড়িতে ওঠার শেষ ধাপে রেলিংয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানিয়েছে, মানসিক অবসাদের কারণেই পায়েল আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হয়েছে।