০৪:৩৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেসির চমকপ্রদ গোলে,আর্জেন্টিনার জয়

print news -

মেসির চমকপ্রদ গোলে,আর্জেন্টিনার জয় আর্জেন্টিনার জার্সিতে লিওনেল মেসি মাঠে নামবেন আর গোল পাবেন না, তা যেন হতেই পারে না! ম্যাচের ৭৯ সেকেন্ডে চমকপ্রদ এক গোলে দলকে এগিয়ে নিলেন অধিনায়ক। বিরতির পর গোল মিলল আরেকটি। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে জয়ের ধারা ধরে রাখল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

বেইজিংয়ে বৃহস্পতিবার(১৫ জুন) আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ২-০ গোলে জিতেছে লিওনেল স্কালোনির দল। দ্বিতীয় গোলটি করেছেন হেরমান পেস্সেইয়া। কাতার বিশ্বকাপ জয়ের পর এই নিয়ে তিন ম্যাচ খেলে ১১ গোল করার বিপরীতে একটিও হজম করেনি আর্জেন্টিনা। এর আগে পানামাকে ২-০ গোলে হারানোর পর মেসির হ্যাটট্রিকে কুরাসাওকে ৭-০ ব্যবধানে বিধ্বস্ত করে তারা।

বিশ্বকাপের শেষ ষোলোয় অস্ট্রেলিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এবার দ্বিতীয় মিনিটে মেসির চমৎকার গোলে এগিয়ে যায় তারা। নিজেদের অর্ধে অস্ট্রেলিয়ার এক খেলোয়াড় বলের নিয়ন্ত্রণ হারালে পেয়ে যান এনসো ফের্নান্দেস। তার পাস ধরে বক্সের বাইরে জায়গা বানিয়ে বাঁ পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ইন্টার মায়ামিতে যোগ দেওয়ার অপেক্ষায় থাকা মেসি।

খেলার পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা অপটার তথ্য অনুযায়ী, পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে মেসির দ্রুততম গোল এটিই, ১ মিনিট ১৯ সেকেন্ড। জাতীয় দলের হয়ে টানা সাত ম্যাচে জালের দেখা পেলেন ৩৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার গোল হলো ১০৩টি।

পঞ্চম মিনিটে আরেকটি সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। মেসির পাস থেকে ভলিতে উড়িয়ে মারেন আলেক্সিস মাক আলিস্তের। নবম মিনিটে বক্সের বাঁ দিকে কাছ থেকে পাশের জালে মারেন মেসি। ২৮তম মিনিটে এমিলিয়ানো মার্তিনেসের দৃঢ়তায় ব্যবধান ধরে রাখতে পারে আর্জেন্টিনা। কাছ থেকে অস্ট্রেলিয়ার ফরোয়ার্ড মিচেল ডিউকের ভলি বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান গত বিশ্বকাপের গোল্ডেন গ্লাভস জয়ী গোলরক্ষক, পরে আলগা বল লাগে পোস্টে।

৩৮তম মিনিটে সুবর্ণ সুযোগ হারান মেসি। রদ্রিগো দে পল মাঝমাঠ থেকে উঁচু করে বল বাড়ান অধিনায়ককে। গোলরক্ষক এগিয়ে আসায় বক্সে ঢুকে লব করেন মেসি, বল উড়ে যায় ক্রসবারের একটু ওপর দিয়ে।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে মেসির ক্রস পাঞ্চ করে ফেরান ম্যাট রায়ান। ফিরতি বলে দুরূহ কোণ থেকে আনহেল দি মারিয়ার শট কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন অস্ট্রেলিয়া গোলরক্ষক। ৫৯তম মিনিটে জোড়া পরিবর্তন আনেন আর্জেন্টিনা কোচ। মাক আলিস্তের ও দি মারিয়াকে তুলে মাঠে নামান হুলিয়ান আলভারেস ও জিওভান্নি লো সেলসোকে।

৬৮তম মিনিটে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। বাঁ দিক থেকে মেসির পাস পেয়ে দে পল ক্রস দেন বক্সে, আর হেডে জালে পাঠান দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে নিকোলাস ওতামেন্দির বদলি নামা ডিফেন্ডার পেস্সেইয়া।

তিন মিনিট পর গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন আলভারেস। মেসির পাস পেয়ে দে পল বক্সে বল দেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ডকে। এই তরুণের নিচু শট দারুণ দক্ষতায় ফেরান গোলরক্ষক।

প্রতিপক্ষের ওপর চাপ ধরে রাখলেও বাকি সময়ে আর তেমন কিছু করে দেখাতে পারেনি আর্জেন্টিনা। এবারের ফিফা উইন্ডোতে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে সোমবার ইন্দোনেশিয়ার মুখোমুখি হবে তিনবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

আনোয়ারুল আজীমকে খুন করতে ৫ কোটি টাকার চুক্তি

মেসির চমকপ্রদ গোলে,আর্জেন্টিনার জয়

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০২:৩৭:৩৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩
print news -

মেসির চমকপ্রদ গোলে,আর্জেন্টিনার জয় আর্জেন্টিনার জার্সিতে লিওনেল মেসি মাঠে নামবেন আর গোল পাবেন না, তা যেন হতেই পারে না! ম্যাচের ৭৯ সেকেন্ডে চমকপ্রদ এক গোলে দলকে এগিয়ে নিলেন অধিনায়ক। বিরতির পর গোল মিলল আরেকটি। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে জয়ের ধারা ধরে রাখল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

বেইজিংয়ে বৃহস্পতিবার(১৫ জুন) আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ২-০ গোলে জিতেছে লিওনেল স্কালোনির দল। দ্বিতীয় গোলটি করেছেন হেরমান পেস্সেইয়া। কাতার বিশ্বকাপ জয়ের পর এই নিয়ে তিন ম্যাচ খেলে ১১ গোল করার বিপরীতে একটিও হজম করেনি আর্জেন্টিনা। এর আগে পানামাকে ২-০ গোলে হারানোর পর মেসির হ্যাটট্রিকে কুরাসাওকে ৭-০ ব্যবধানে বিধ্বস্ত করে তারা।

বিশ্বকাপের শেষ ষোলোয় অস্ট্রেলিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এবার দ্বিতীয় মিনিটে মেসির চমৎকার গোলে এগিয়ে যায় তারা। নিজেদের অর্ধে অস্ট্রেলিয়ার এক খেলোয়াড় বলের নিয়ন্ত্রণ হারালে পেয়ে যান এনসো ফের্নান্দেস। তার পাস ধরে বক্সের বাইরে জায়গা বানিয়ে বাঁ পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ইন্টার মায়ামিতে যোগ দেওয়ার অপেক্ষায় থাকা মেসি।

খেলার পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা অপটার তথ্য অনুযায়ী, পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে মেসির দ্রুততম গোল এটিই, ১ মিনিট ১৯ সেকেন্ড। জাতীয় দলের হয়ে টানা সাত ম্যাচে জালের দেখা পেলেন ৩৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার গোল হলো ১০৩টি।

পঞ্চম মিনিটে আরেকটি সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। মেসির পাস থেকে ভলিতে উড়িয়ে মারেন আলেক্সিস মাক আলিস্তের। নবম মিনিটে বক্সের বাঁ দিকে কাছ থেকে পাশের জালে মারেন মেসি। ২৮তম মিনিটে এমিলিয়ানো মার্তিনেসের দৃঢ়তায় ব্যবধান ধরে রাখতে পারে আর্জেন্টিনা। কাছ থেকে অস্ট্রেলিয়ার ফরোয়ার্ড মিচেল ডিউকের ভলি বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান গত বিশ্বকাপের গোল্ডেন গ্লাভস জয়ী গোলরক্ষক, পরে আলগা বল লাগে পোস্টে।

৩৮তম মিনিটে সুবর্ণ সুযোগ হারান মেসি। রদ্রিগো দে পল মাঝমাঠ থেকে উঁচু করে বল বাড়ান অধিনায়ককে। গোলরক্ষক এগিয়ে আসায় বক্সে ঢুকে লব করেন মেসি, বল উড়ে যায় ক্রসবারের একটু ওপর দিয়ে।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে মেসির ক্রস পাঞ্চ করে ফেরান ম্যাট রায়ান। ফিরতি বলে দুরূহ কোণ থেকে আনহেল দি মারিয়ার শট কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন অস্ট্রেলিয়া গোলরক্ষক। ৫৯তম মিনিটে জোড়া পরিবর্তন আনেন আর্জেন্টিনা কোচ। মাক আলিস্তের ও দি মারিয়াকে তুলে মাঠে নামান হুলিয়ান আলভারেস ও জিওভান্নি লো সেলসোকে।

৬৮তম মিনিটে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। বাঁ দিক থেকে মেসির পাস পেয়ে দে পল ক্রস দেন বক্সে, আর হেডে জালে পাঠান দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে নিকোলাস ওতামেন্দির বদলি নামা ডিফেন্ডার পেস্সেইয়া।

তিন মিনিট পর গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন আলভারেস। মেসির পাস পেয়ে দে পল বক্সে বল দেন ম্যানচেস্টার সিটির ফরোয়ার্ডকে। এই তরুণের নিচু শট দারুণ দক্ষতায় ফেরান গোলরক্ষক।

প্রতিপক্ষের ওপর চাপ ধরে রাখলেও বাকি সময়ে আর তেমন কিছু করে দেখাতে পারেনি আর্জেন্টিনা। এবারের ফিফা উইন্ডোতে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে সোমবার ইন্দোনেশিয়ার মুখোমুখি হবে তিনবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।