০৫:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমার সীমান্তে এ মুহূর্তে সীমান্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে কিছু ভাবা হচ্ছে না: পররাষ্ট্র সচিব

সীমান্তে সেনা মোতায়েন

print news -

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমারের গোলাগুলির বিষয়ে দেশের সংশ্লিষ্ট সব এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে সরকার। পাশাপাশি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও কোস্টগার্ডকে সজাগ থাকতে বলা হয়েছে।

যদিও এ মুহূর্তে সীমান্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে কিছু ভাবা হচ্ছে না। তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম। রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে তলব করা হয়। একই দিন দেশের এজেন্সিগুলোকে নিয়েও বৈঠক হয়। এরপর বিকেলে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিব। মো. খুরশেদ আলম বলেন, ‘আজ রোববার সবাইকে নিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের মিটিং করেছি। বাংলাদেশের যত এজেন্সি আছে, তাদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ রাখছি। আমরা বিজিবি ও কোস্টগার্ডকে বলে দিয়েছি, বর্ডারে সজাগ থাকতে।

রি-এনফোর্সমেন্ট যেখানে যতটুকু লাগে, করবে। সাগর দিয়ে বা অন্য জায়গা দিয়ে কোনো রোহিঙ্গা যাতে প্রবেশ করতে না পারে, সে বিষয়ে আমরা সতর্ক দৃষ্টি রাখার অনুরোধ করেছি।’ সাংবাদিকরা ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিবের কাছে জানতে চান সীমান্তের বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ সরকার সীমান্তে সেনা মোতায়েনের কথা ভাবছে কি না। জবাবে তিনি বলেন, এ মুহূর্তে সরকার ভাবছে না।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

মিয়ানমার সীমান্তে এ মুহূর্তে সীমান্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে কিছু ভাবা হচ্ছে না: পররাষ্ট্র সচিব

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:২৪:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২
print news -

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমারের গোলাগুলির বিষয়ে দেশের সংশ্লিষ্ট সব এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে সরকার। পাশাপাশি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও কোস্টগার্ডকে সজাগ থাকতে বলা হয়েছে।

যদিও এ মুহূর্তে সীমান্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে কিছু ভাবা হচ্ছে না। তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম। রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে তলব করা হয়। একই দিন দেশের এজেন্সিগুলোকে নিয়েও বৈঠক হয়। এরপর বিকেলে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিব। মো. খুরশেদ আলম বলেন, ‘আজ রোববার সবাইকে নিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের মিটিং করেছি। বাংলাদেশের যত এজেন্সি আছে, তাদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ রাখছি। আমরা বিজিবি ও কোস্টগার্ডকে বলে দিয়েছি, বর্ডারে সজাগ থাকতে।

রি-এনফোর্সমেন্ট যেখানে যতটুকু লাগে, করবে। সাগর দিয়ে বা অন্য জায়গা দিয়ে কোনো রোহিঙ্গা যাতে প্রবেশ করতে না পারে, সে বিষয়ে আমরা সতর্ক দৃষ্টি রাখার অনুরোধ করেছি।’ সাংবাদিকরা ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রসচিবের কাছে জানতে চান সীমান্তের বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ সরকার সীমান্তে সেনা মোতায়েনের কথা ভাবছে কি না। জবাবে তিনি বলেন, এ মুহূর্তে সরকার ভাবছে না।