০৩:৪০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করলেন ইউপি চেয়ারম্যান তুতিউর রহমান

print news -

গত কয়েকদিন একনাগাড়ে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার কুশিয়ারা নদী উপচে ইতিমধ্যে উপজেলার ৫নংকুড়ারবাজার ইউনিয়ন ও শেওলা ইউনিয়নে কুশিয়ারা নদীর তীরে অবস্থিত বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়ে মানুষজন পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

রাস্তাঘাটের পাশাপাশি বসতবাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় জনদূর্ভোগ বেড়েছে। প্লাবিত এলাকায় বিশুদ্ধ পানির সংকট তৈরি হয়েছে, দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষ খাদ্য সংকটে পড়েছে। প্লাবিত এলাকা ঘুরে ঘুরে প্রতিটি খানা/বাড়ী ও রাস্তা-ঘাট সহ সরকার নির্ধারিত বন্যা আশ্যয় কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করলেন ৫নং কুড়ারবাজার ইউপি চেয়ারমম্যান তুতিউর রহমান তুতা।

তিনি ইউনিয়নের আঙ্গারজুর, বৈরাগীবাজার, কিয়াছারা, গড়রবন্দ, আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর, গোবিন্দ্রশ্রী, খশিরবন্দ,খশির নামনগর, খশির, দেউলগ্রাম, কুড়ারবাজার, আকাখাজনা সহ নদী তীরবর্তী এলাকাসমুহ নিয়মিত পরিদর্শন করেছেন। তাহার সফর সঙ্গী হিসেবে নিজ নিজ এলাকার ইউপি সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শনকালে তিনি বন্যা দুর্গত ও সাধারন মানুষের সাথে কথা বলেন।002 -

তাহার নিজ হাতে বন্যায় আক্রান্ত প্রতিটি মানুষের নাম লিপিবব্ধ করেন এবং তাহাদের ত্রান সামগ্রী বিতরনের আশ্বাস প্রদান করেন।  বিশুদ্ধ খাবার পানি, পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট ও দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষকে পর্যাপ্ত খাদ্য সরবরাহ করার জোর দাবি জানান ৫নং কুড়ারবাজার ইউনিয়নের জনসাধারণ। তিনি এ ব্যাপারে সরকারের পাশা-পাশি ইউনিয়ন/উপজেলার সকল সচেতন বিবেকবান মানুষ এবং বিশেষ করে প্রবাসীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

এসময় তিনি বাঁধ ও দির্ঘদিন সংস্কার না হওয়া নদী ও খাল খনন সহ সংস্কারের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উর্ধতন মহলে কথা বলবেন এবং ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের কল্যানে নিজেকে নিয়োজিত রাখবেন বলেও আশ্বার প্রদান করেন।

তিনি আরোও বলেন, এলাকায় যে কোন সময় কোন অপ্রিতিকর ঘঠনা ঘটলে বা বন্যায়  ক্ষতিগ্রস্থ হলে সাথে সাথে তাহাকে জানানোর জন্য অনুরোধ করেন। তিনি সার্বিকভাবে সহযোগীতা করবেন বলে সবাইকে আশ্বাস দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, বন্যার প্রথম দিন থেকেই আমাদের ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহেব ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম পরিদর্শন করছেন এবং সবার সাথে মতবিনিয় করছেন। কিন্তু আজ মানুষ অসহায় বন্যায় আক্রান্ত হয়ে মানুষ আজ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ঘরে নেই খাবার নেই চিকিৎসার টাকা । মুখে মুখে সান্তনা দিলেও পেটে ভাত নেই মানুষের। পরিদর্শনের পাশাপাশি দুস্থ মানুষের মাঝে শুকনো খাবার ও ত্রান সামগ্রী বিতরণ করার জন্য ইউপি চেয়ারম্যান সহ উর্ধতন মহলেন দৃষ্ঠি আকর্শন করছি।

কয়েকজন ভুক্তভুগির সাথে কথা বলে জানাযায়, চেয়ারম্যান সাহেব আমাদের দেখতে এসেছেন ও কিছু শুকনো খাবার আমরা পেয়েছি কিন্তু আমরা না খেয়ে অনাহারে দিনানিপাত করতে হচ্ছে। নেই রোজী রোজগার ঘরে নেই খাবার কিভাবে বাচ্ছা কাচ্ছা নিয়ে বেচে থাকবো। আমরা উর্ধতন মহলের কাছে আমাদের অনুরোধ আমাদের জান মালের নিরাপত্তা সহ আমাদের ত্রান সামগ্রী দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

আনোয়ারুল আজীমকে খুন করতে ৫ কোটি টাকার চুক্তি

বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করলেন ইউপি চেয়ারম্যান তুতিউর রহমান

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:১৯:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ মে ২০২২
print news -

গত কয়েকদিন একনাগাড়ে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার কুশিয়ারা নদী উপচে ইতিমধ্যে উপজেলার ৫নংকুড়ারবাজার ইউনিয়ন ও শেওলা ইউনিয়নে কুশিয়ারা নদীর তীরে অবস্থিত বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়ে মানুষজন পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

রাস্তাঘাটের পাশাপাশি বসতবাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় জনদূর্ভোগ বেড়েছে। প্লাবিত এলাকায় বিশুদ্ধ পানির সংকট তৈরি হয়েছে, দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষ খাদ্য সংকটে পড়েছে। প্লাবিত এলাকা ঘুরে ঘুরে প্রতিটি খানা/বাড়ী ও রাস্তা-ঘাট সহ সরকার নির্ধারিত বন্যা আশ্যয় কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করলেন ৫নং কুড়ারবাজার ইউপি চেয়ারমম্যান তুতিউর রহমান তুতা।

তিনি ইউনিয়নের আঙ্গারজুর, বৈরাগীবাজার, কিয়াছারা, গড়রবন্দ, আঙ্গুরা মোহাম্মদপুর, গোবিন্দ্রশ্রী, খশিরবন্দ,খশির নামনগর, খশির, দেউলগ্রাম, কুড়ারবাজার, আকাখাজনা সহ নদী তীরবর্তী এলাকাসমুহ নিয়মিত পরিদর্শন করেছেন। তাহার সফর সঙ্গী হিসেবে নিজ নিজ এলাকার ইউপি সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শনকালে তিনি বন্যা দুর্গত ও সাধারন মানুষের সাথে কথা বলেন।002 -

তাহার নিজ হাতে বন্যায় আক্রান্ত প্রতিটি মানুষের নাম লিপিবব্ধ করেন এবং তাহাদের ত্রান সামগ্রী বিতরনের আশ্বাস প্রদান করেন।  বিশুদ্ধ খাবার পানি, পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট ও দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষকে পর্যাপ্ত খাদ্য সরবরাহ করার জোর দাবি জানান ৫নং কুড়ারবাজার ইউনিয়নের জনসাধারণ। তিনি এ ব্যাপারে সরকারের পাশা-পাশি ইউনিয়ন/উপজেলার সকল সচেতন বিবেকবান মানুষ এবং বিশেষ করে প্রবাসীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

এসময় তিনি বাঁধ ও দির্ঘদিন সংস্কার না হওয়া নদী ও খাল খনন সহ সংস্কারের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উর্ধতন মহলে কথা বলবেন এবং ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের কল্যানে নিজেকে নিয়োজিত রাখবেন বলেও আশ্বার প্রদান করেন।

তিনি আরোও বলেন, এলাকায় যে কোন সময় কোন অপ্রিতিকর ঘঠনা ঘটলে বা বন্যায়  ক্ষতিগ্রস্থ হলে সাথে সাথে তাহাকে জানানোর জন্য অনুরোধ করেন। তিনি সার্বিকভাবে সহযোগীতা করবেন বলে সবাইকে আশ্বাস দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, বন্যার প্রথম দিন থেকেই আমাদের ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহেব ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম পরিদর্শন করছেন এবং সবার সাথে মতবিনিয় করছেন। কিন্তু আজ মানুষ অসহায় বন্যায় আক্রান্ত হয়ে মানুষ আজ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ঘরে নেই খাবার নেই চিকিৎসার টাকা । মুখে মুখে সান্তনা দিলেও পেটে ভাত নেই মানুষের। পরিদর্শনের পাশাপাশি দুস্থ মানুষের মাঝে শুকনো খাবার ও ত্রান সামগ্রী বিতরণ করার জন্য ইউপি চেয়ারম্যান সহ উর্ধতন মহলেন দৃষ্ঠি আকর্শন করছি।

কয়েকজন ভুক্তভুগির সাথে কথা বলে জানাযায়, চেয়ারম্যান সাহেব আমাদের দেখতে এসেছেন ও কিছু শুকনো খাবার আমরা পেয়েছি কিন্তু আমরা না খেয়ে অনাহারে দিনানিপাত করতে হচ্ছে। নেই রোজী রোজগার ঘরে নেই খাবার কিভাবে বাচ্ছা কাচ্ছা নিয়ে বেচে থাকবো। আমরা উর্ধতন মহলের কাছে আমাদের অনুরোধ আমাদের জান মালের নিরাপত্তা সহ আমাদের ত্রান সামগ্রী দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।