০৪:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’: এর হানা, সব রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা

print news -

বঙ্গোপসাগরে পার্শ্বদক্ষিণাঞ্চলে গড়ানো ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ অত্যন্ত শক্তিশালী হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) বরিশালসহ পশ্চিমবঙ্গের নদীগুলিতে সকল প্রকার লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে। এই তথ্য আজ সে কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক, বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক এবং বরিশাল নদীবন্দরের কর্মকর্তা, মঙ্গলবার দুপুরে নিশ্চিত করেছেন। ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিম-উত্তর বঙ্গোপসাগরে এবং সংস্ক্লিষ্ট অঞ্চলে অবস্থিত।

এর কেন্দ্রিতে বাতাসের বেগ প্রায় ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত উন্নীত হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি ধীরে ধীরে বাংলাদেশের পশ্চিমপূর্বে সীমান্তে আসছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম ও পায়রা বন্দরে ৭ নম্বর, কক্সবাজারে ৬ এবং মোংলা বন্দরে ৫ নম্বর আপত্তি উপস্থাপন করা হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক আবদুর রাজ্জাক বাংলাদেশের বরিশাল এবং ভোলা বিভাগে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বেশি সম্ভাবনাকের মধ্যে রয়েছে বলে বলেছেন। তাই বরিশাল-ভোলা এলাকায় প্রাতঃ ১০টা থেকে সমগ্র নৌসেনা চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। আজ সকালে ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে বরিশাল শহরে বৃষ্টি হারানো হচ্ছে। সকাল ৯টা পর্যন্ত বৃষ্টি অপরিবর্তিত রেখেছে। এরপরও বৃষ্টি হলেও মেঘলা ও বাতাসের আবহাওয়া উচ্ছ্বাসিত করছে।

বিআইডব্লিউটিএর নৌনিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিদর্শক কবির হোসেন বলেন, পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৭ নম্বর ভিক্ষুণ্ণতা ও বরিশাল নদীবন্দরে ২ নম্বর সতর্কতা সৃষ্টিকর রয়েছে। এছাড়াও বৈরী আবহাওয়া কারণে সকাল ১০টা থেকে বরিশাল নদীবন্দর থেকে সমগ্র যাত্রীবাহী নৌন চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। এই পরিস্থিতির উন্নতি না পরলে কোনো মার্গদর্শন পরিবর্তন ঘটাবে না। বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাতে নৌযান চালু থাকবে কি না, সে সম্বন্ধে পরে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’-এর কারণে চট্টগ্রাম ও পায়রা বন্দরকে ৭ নম্বর বিপৎসংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১০ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে মোংলা বন্দরকে ৫ নম্বর বিপৎসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আর কক্সবাজারকে দেখাতে বলা হয়েছে ৬ নম্বর বিপৎসংকেত।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে, উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুরসহ ভোলা ও তার অদূরবর্তী দ্বীপ-চরগুলো ৭ নম্বর বিপৎসংকেতের আওতায় থাকবে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরাসহ অদূরবর্তী দ্বীপ-চরের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৩ থেকে ৫ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে এখন একই এলাকায় রয়েছে। ‘হামুন’ আরও উত্তর ও উত্তর–পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে দুপুর নাগাদ ভোলার কাছ দিয়ে বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

জনপ্রিয় সংবাদ

আনোয়ারুল আজীমকে খুন করতে ৫ কোটি টাকার চুক্তি

বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’: এর হানা, সব রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ১০:১৩:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩
print news -

বঙ্গোপসাগরে পার্শ্বদক্ষিণাঞ্চলে গড়ানো ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ অত্যন্ত শক্তিশালী হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) বরিশালসহ পশ্চিমবঙ্গের নদীগুলিতে সকল প্রকার লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে। এই তথ্য আজ সে কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক, বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক এবং বরিশাল নদীবন্দরের কর্মকর্তা, মঙ্গলবার দুপুরে নিশ্চিত করেছেন। ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিম-উত্তর বঙ্গোপসাগরে এবং সংস্ক্লিষ্ট অঞ্চলে অবস্থিত।

এর কেন্দ্রিতে বাতাসের বেগ প্রায় ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত উন্নীত হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি ধীরে ধীরে বাংলাদেশের পশ্চিমপূর্বে সীমান্তে আসছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম ও পায়রা বন্দরে ৭ নম্বর, কক্সবাজারে ৬ এবং মোংলা বন্দরে ৫ নম্বর আপত্তি উপস্থাপন করা হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক আবদুর রাজ্জাক বাংলাদেশের বরিশাল এবং ভোলা বিভাগে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বেশি সম্ভাবনাকের মধ্যে রয়েছে বলে বলেছেন। তাই বরিশাল-ভোলা এলাকায় প্রাতঃ ১০টা থেকে সমগ্র নৌসেনা চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। আজ সকালে ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে বরিশাল শহরে বৃষ্টি হারানো হচ্ছে। সকাল ৯টা পর্যন্ত বৃষ্টি অপরিবর্তিত রেখেছে। এরপরও বৃষ্টি হলেও মেঘলা ও বাতাসের আবহাওয়া উচ্ছ্বাসিত করছে।

বিআইডব্লিউটিএর নৌনিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিদর্শক কবির হোসেন বলেন, পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৭ নম্বর ভিক্ষুণ্ণতা ও বরিশাল নদীবন্দরে ২ নম্বর সতর্কতা সৃষ্টিকর রয়েছে। এছাড়াও বৈরী আবহাওয়া কারণে সকাল ১০টা থেকে বরিশাল নদীবন্দর থেকে সমগ্র যাত্রীবাহী নৌন চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। এই পরিস্থিতির উন্নতি না পরলে কোনো মার্গদর্শন পরিবর্তন ঘটাবে না। বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রাতে নৌযান চালু থাকবে কি না, সে সম্বন্ধে পরে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’-এর কারণে চট্টগ্রাম ও পায়রা বন্দরকে ৭ নম্বর বিপৎসংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১০ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়। বিজ্ঞপ্তিতে মোংলা বন্দরকে ৫ নম্বর বিপৎসংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আর কক্সবাজারকে দেখাতে বলা হয়েছে ৬ নম্বর বিপৎসংকেত।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে, উপকূলীয় জেলা পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বরগুনা, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুরসহ ভোলা ও তার অদূরবর্তী দ্বীপ-চরগুলো ৭ নম্বর বিপৎসংকেতের আওতায় থাকবে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরাসহ অদূরবর্তী দ্বীপ-চরের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৩ থেকে ৫ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে এখন একই এলাকায় রয়েছে। ‘হামুন’ আরও উত্তর ও উত্তর–পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে দুপুর নাগাদ ভোলার কাছ দিয়ে বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করতে পারে।