১১:১৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নেত্রকোণায় রেলের বগি কেটে যন্ত্রাংশ বিক্রির সংবাদের প্রতিবাদ সভা

print news -

নেত্রকোনা  প্রতিনিধিঃ

নেত্রকোণায় রেলের বগির বিভিন্ন অংশ কেটে বিক্রি করার অভিযোগে সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশন ও কয়েকটি ওনলাইন মিডিয়ার একটি সংবাদে দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।
বাংলাদেশ রেলওয়ের যাত্রীদের সেবায় ঢাকা-নেত্রকোণা-মোহনগঞ্জসহ মোট ৭টি ষ্টেশনে আপ ৫টি ও ডাউন ৫টি ট্রেন চলাচল করে। প্রতিদিন এই রেলপথে কয়েক হাজার যাত্রী চলাচল করে। নেত্রকোণা সদর উপজেলার ঠাকুরাকোণা রেলষ্টেশনে মালবাহী বগি থেকে বিভিন্ন অংশ কেটে বিক্রির কোনো ঘটনা ঘটেনি। একটি মহল উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে সংবাদে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তিকর সংবাদটি পরিবেশনে সহযোগিতা করেছে। রেলওয়ের মালবাহী বগির পরিত্যক্ত কিছু যন্ত্রাংশ ওই স্টেশনে সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। এলাকার কয়েকজন নিতে চাইলে তাতে বাধা দেয়ায় এধরণের মিথ্যে অভিযোগ আনা হয়েছে।
মিডিয়ায় পরিবেশিত সংবাদটির প্রতিবাদ করে ষ্টেশনটির অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত স্টেশন মাষ্টার আতাউর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক, নেত্রকোণা কোর্ট স্টেশনের হাবিলদার তুলসী চন্দ্র পাল, রেলওয়ে পুলিশ ফারুক হোসেন, আব্দুল মালেক, মোঃ আব্দুর রশিদ, সারোয়ার হোসেন টিটু সহ এলাকার কয়েকজন বলেন, ঠাকুরাকোণা স্টেশনে রেলওয়ের মালবাহী বগির যন্ত্রাংশ চুরির কোনো ঘটনা ঘটেনি। এলাকার একটি চক্র উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এমন অভিযোগ করেছে।
অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত স্টেশন মাষ্টার আতাউর রহমান মিডিয়ায় পরিবেশিত সংবাদটির প্রতিবাদ করে নিন্দা প্রকাশ করেছেন। ভবিষ্যতে এধরণের বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশন থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

নেত্রকোণায় রেলের বগি কেটে যন্ত্রাংশ বিক্রির সংবাদের প্রতিবাদ সভা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০২:০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২২
print news -

নেত্রকোনা  প্রতিনিধিঃ

নেত্রকোণায় রেলের বগির বিভিন্ন অংশ কেটে বিক্রি করার অভিযোগে সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশন ও কয়েকটি ওনলাইন মিডিয়ার একটি সংবাদে দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।
বাংলাদেশ রেলওয়ের যাত্রীদের সেবায় ঢাকা-নেত্রকোণা-মোহনগঞ্জসহ মোট ৭টি ষ্টেশনে আপ ৫টি ও ডাউন ৫টি ট্রেন চলাচল করে। প্রতিদিন এই রেলপথে কয়েক হাজার যাত্রী চলাচল করে। নেত্রকোণা সদর উপজেলার ঠাকুরাকোণা রেলষ্টেশনে মালবাহী বগি থেকে বিভিন্ন অংশ কেটে বিক্রির কোনো ঘটনা ঘটেনি। একটি মহল উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে সংবাদে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তিকর সংবাদটি পরিবেশনে সহযোগিতা করেছে। রেলওয়ের মালবাহী বগির পরিত্যক্ত কিছু যন্ত্রাংশ ওই স্টেশনে সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। এলাকার কয়েকজন নিতে চাইলে তাতে বাধা দেয়ায় এধরণের মিথ্যে অভিযোগ আনা হয়েছে।
মিডিয়ায় পরিবেশিত সংবাদটির প্রতিবাদ করে ষ্টেশনটির অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত স্টেশন মাষ্টার আতাউর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক, নেত্রকোণা কোর্ট স্টেশনের হাবিলদার তুলসী চন্দ্র পাল, রেলওয়ে পুলিশ ফারুক হোসেন, আব্দুল মালেক, মোঃ আব্দুর রশিদ, সারোয়ার হোসেন টিটু সহ এলাকার কয়েকজন বলেন, ঠাকুরাকোণা স্টেশনে রেলওয়ের মালবাহী বগির যন্ত্রাংশ চুরির কোনো ঘটনা ঘটেনি। এলাকার একটি চক্র উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এমন অভিযোগ করেছে।
অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত স্টেশন মাষ্টার আতাউর রহমান মিডিয়ায় পরিবেশিত সংবাদটির প্রতিবাদ করে নিন্দা প্রকাশ করেছেন। ভবিষ্যতে এধরণের বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশন থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।