০২:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নেত্রকোণায় স্বামীর পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা

print news -

স্টাফ রিপোর্টার নেত্রকোণা:

নেত্রকোণায় পারিবারিক কলহের জেরে নদী ইসলাম নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। সোমবার রাতে জেলা শহরের পশ্চিম নাগড়া এলাকায় নিজ বসতঘরে ঘুমন্ত স্ত্রী গলায় ছুড়ি চালিয়ে হত্যার চেষ্টা করে স্বামী নাইম হাসান (২৫)। সে শহরের অনন্দবাজার এলাকার মৃত মানিক মিয়ার ছেলে।
পুলিশ,পরিবারের লোকজন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত প্রায় ৭ বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করে ওই দম্পতি। জেলা শহরের পশ্চিম নাগড়া এলাকার আনোয়ার হোসেনের মেয়ে নদী ইসলাম শহরের আানন্দবাজার এলাকার মৃত মানিক মিয়ার ছেলে নাইম হাসান কাজল। ৭ বছর আগে তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। পরে বিষয়টি পারিবারিকভাবে মেনে নিয়ে শ^শুরের বাসায় বসবাস করছিল নাইম হাসান। এরপর মাঝেমধ্যে নাঈম হাসান স্ত্রী নদীকে টাকার জন্য নির্যাতন করতো বলে জানায় নদীর পরিবারের সদস্যরা।
জানতে চাইলে নদী ইসলাম বলেন, স্বামীর মুঠোফেনে স্বামীর পরকীয়া দেখতে পেয়ে তার সাথে নাঈমের ঝগড়া হয়। সোমবার সন্ধ্যায় মায়ের দেয়া ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য তাকে চাপ প্রয়োগ করে স্বামী নাঈম। ওইদিন সন্ধ্যার পর নদী ইসলাম ঘুমিয়ে গেলে তাকে হত্যার জন্য গলায় ছুড়ি চালায় নাঈম। একপর্যায়ে নদী নীরব হয়ে গেলে মৃত ভেবে স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে যায় নাঈম। কিছুক্ষণ পর নদীর গোঙ্গানির শব্দ শুনে বাসার লোকজন তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। ওই সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক নদীর গলায় ৫১ টি সেলাই করে। তবে বর্তমানে নদী ইসলাম আশংকামুক্ত রয়েছেন।
এবিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত স্বামী নাইম হাসানের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এ ঘটনায় নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার শাকের আহমেদ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। একটি স্বাক্ষী দিতে আমি ময়মনসিংহে আছি। এঘটনায় তিনজনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

নেত্রকোণায় স্বামীর পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৩:২৫:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৩
print news -

স্টাফ রিপোর্টার নেত্রকোণা:

নেত্রকোণায় পারিবারিক কলহের জেরে নদী ইসলাম নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। সোমবার রাতে জেলা শহরের পশ্চিম নাগড়া এলাকায় নিজ বসতঘরে ঘুমন্ত স্ত্রী গলায় ছুড়ি চালিয়ে হত্যার চেষ্টা করে স্বামী নাইম হাসান (২৫)। সে শহরের অনন্দবাজার এলাকার মৃত মানিক মিয়ার ছেলে।
পুলিশ,পরিবারের লোকজন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত প্রায় ৭ বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করে ওই দম্পতি। জেলা শহরের পশ্চিম নাগড়া এলাকার আনোয়ার হোসেনের মেয়ে নদী ইসলাম শহরের আানন্দবাজার এলাকার মৃত মানিক মিয়ার ছেলে নাইম হাসান কাজল। ৭ বছর আগে তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। পরে বিষয়টি পারিবারিকভাবে মেনে নিয়ে শ^শুরের বাসায় বসবাস করছিল নাইম হাসান। এরপর মাঝেমধ্যে নাঈম হাসান স্ত্রী নদীকে টাকার জন্য নির্যাতন করতো বলে জানায় নদীর পরিবারের সদস্যরা।
জানতে চাইলে নদী ইসলাম বলেন, স্বামীর মুঠোফেনে স্বামীর পরকীয়া দেখতে পেয়ে তার সাথে নাঈমের ঝগড়া হয়। সোমবার সন্ধ্যায় মায়ের দেয়া ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য তাকে চাপ প্রয়োগ করে স্বামী নাঈম। ওইদিন সন্ধ্যার পর নদী ইসলাম ঘুমিয়ে গেলে তাকে হত্যার জন্য গলায় ছুড়ি চালায় নাঈম। একপর্যায়ে নদী নীরব হয়ে গেলে মৃত ভেবে স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে যায় নাঈম। কিছুক্ষণ পর নদীর গোঙ্গানির শব্দ শুনে বাসার লোকজন তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। ওই সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক নদীর গলায় ৫১ টি সেলাই করে। তবে বর্তমানে নদী ইসলাম আশংকামুক্ত রয়েছেন।
এবিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত স্বামী নাইম হাসানের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এ ঘটনায় নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার শাকের আহমেদ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। একটি স্বাক্ষী দিতে আমি ময়মনসিংহে আছি। এঘটনায় তিনজনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।