০৬:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নভোএয়া র: বহরে যুক্ত হচ্ছে ৩টি এয়ারবাস, বাড়ছে আন্তর্জাতিক রু টে ফ্লাইট

print news -

নিউজ ডেস্ক:  ২০২৪ সালে উড়োজাহাজের সংখ্যা ও আন্তর্জাতিক নতুন রুটে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে দেশের অন্যতম বেসরকারি এয়ারলাইন নভোএয়ার। এ বছর এয়ারবাসের ৩টি উড়োজাহাজ বহরে যোগ করার কার্যক্রম এরই মধ্যে শুরু করেছে এয়ারলাইনটি। এছাড়া ৬টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা এয়ারলাইনটির।

নভোএয়ার ২০১৩ সালে ৯ জানুয়ারিতে অভ্যন্তরীণ রুটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে যাত্রী পরিবহন শুরু করে। অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনার প্রায় তিন বছর পর মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে ফ্লাইট চালু করে নভোএয়ার। যদিও ২০১৭ সালে এই রুটে ফ্লাইট বন্ধ করে নভোএয়ার। বর্তমানে আন্তর্জাতিক রুটের মধ্যে শুধু কলকাতায় ফ্লাইট পরিচালনা করছে এয়ারলাইনটি।

বর্তমানে নভোএয়ারের বহরে ৭টি এটিআর ৭২-৫০০ উড়োজাহাজ রয়েছে। এই উড়োজাহাজ দিয়ে দেশের অভ্যন্তরে ৭টি এবং আন্তর্জাতিক ১টি গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করছে এয়ারলাইনটি। নভোএয়ার ১১ বছরে ১ লাখেরও বেশি ফ্লাইট পরিচালনা করে ৬০ লাখেরও বেশি যাত্রীকে সেবা দিয়েছে।

আরো পড়ুনঃ

বহরে এয়ারবাসের উড়োজাহাজ যুক্ত করার পরিকল্পনার কথা জানলেন নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মফিজুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা এয়ারবাসের তিনটি উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত করবো।  আমাদের পরিকল্পনা হচ্ছে এয়ারবাসের এ৩২১ মডেলের  উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত করার। সমস্যা হচ্ছে, এই মুহূর্তে পৃথিবীতে উড়োজাহাজ লিজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। আবার এ৩২১ মডেলটি যে কনফিগারেশনে আমরা চাচ্ছি, সেই অনুযায়ী পাচ্ছি না। ইউরোপে ৩ ক্লাস কনফিগারেশনের প্রচলন থাকলেও বাংলাদেশে এটি চলবে না। আবার রিকনফিগারেশন করতে গেলে ২-৩ মিলিয়ন ডলারের খরচ আছে, সেই খরচ আমাদের বহন করতে হবে। এ কারণে আমরা রিকনফিগারেশন দিকে যাবো না।

দেশে ডলার সংকটও চ্যালেঞ্জ বলে জানালেন নভোএয়ারের এমডি মফিজুর রহমান। তিনি বলেন, কিছু কিছু লিজিং প্রতিষ্ঠান আমাদের প্রথমেই প্রশ্নে করে, তোমাদের (নভোএয়ার) উড়োজাহাজ লিজ দিলে তো তোমরা পেমেন্ট ঠিক মতো দিতে পারবে না, বাংলাদেশে তো ডলার সংকট। আমরা তাদের আশ্বস্ত করেছি, জানিয়েছি আমরা তো এখন পার্টস কিনছি। প্রতি মাসে আমাদের ২ মিলিয়ন ডলারের পার্টস কেনা লাগে, এসব পেমেন্ট তো আমরা করছি।

আরো পড়ুন:

মফিজুর রহমান বলেন, এরমধ্যেও আমরা উড়োজাহাজের সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছি। লিজিং প্রতিষ্ঠান আমাদের আশ্বাস দিয়েছে এ বছর মার্চের মধ্যে উড়োজাহাজ পাওয়া সম্ভব হবে।

৬টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা কথা বললেন নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। মফিজুর রহমান বলেন, নতুন উড়োজাহাজগুলো যুক্ত হলেই ব্যাংকক, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, দুবাই, শারজাহ, মাস্কাটে আমাদের ফ্লাইট শুরু করবো। নিরাপত্তা ও সেবা, এই দুই মূলমন্ত্রকে আমরা সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। একটি বিশ্বমানের সেবা প্রদানের প্রতিশ্রুতি নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু। সময়ানুযায়ী ফ্লাইট পরিচালনা ও নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করাই আমাদের ব্যবসায়িক দর্শনের সর্বোচ্চ প্রাধিকার।

সুত্র; বাংলা বিট্রিউন

ট্যাগঃ

নভোএয়া র: বহরে যুক্ত হচ্ছে ৩টি এয়ারবাস, বাড়ছে আন্তর্জাতিক রু টে ফ্লাইট

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৫:১৬:৪৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৪
print news -

নিউজ ডেস্ক:  ২০২৪ সালে উড়োজাহাজের সংখ্যা ও আন্তর্জাতিক নতুন রুটে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে দেশের অন্যতম বেসরকারি এয়ারলাইন নভোএয়ার। এ বছর এয়ারবাসের ৩টি উড়োজাহাজ বহরে যোগ করার কার্যক্রম এরই মধ্যে শুরু করেছে এয়ারলাইনটি। এছাড়া ৬টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা এয়ারলাইনটির।

নভোএয়ার ২০১৩ সালে ৯ জানুয়ারিতে অভ্যন্তরীণ রুটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে যাত্রী পরিবহন শুরু করে। অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনার প্রায় তিন বছর পর মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে ফ্লাইট চালু করে নভোএয়ার। যদিও ২০১৭ সালে এই রুটে ফ্লাইট বন্ধ করে নভোএয়ার। বর্তমানে আন্তর্জাতিক রুটের মধ্যে শুধু কলকাতায় ফ্লাইট পরিচালনা করছে এয়ারলাইনটি।

বর্তমানে নভোএয়ারের বহরে ৭টি এটিআর ৭২-৫০০ উড়োজাহাজ রয়েছে। এই উড়োজাহাজ দিয়ে দেশের অভ্যন্তরে ৭টি এবং আন্তর্জাতিক ১টি গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করছে এয়ারলাইনটি। নভোএয়ার ১১ বছরে ১ লাখেরও বেশি ফ্লাইট পরিচালনা করে ৬০ লাখেরও বেশি যাত্রীকে সেবা দিয়েছে।

আরো পড়ুনঃ

বহরে এয়ারবাসের উড়োজাহাজ যুক্ত করার পরিকল্পনার কথা জানলেন নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মফিজুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা এয়ারবাসের তিনটি উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত করবো।  আমাদের পরিকল্পনা হচ্ছে এয়ারবাসের এ৩২১ মডেলের  উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত করার। সমস্যা হচ্ছে, এই মুহূর্তে পৃথিবীতে উড়োজাহাজ লিজে পাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। আবার এ৩২১ মডেলটি যে কনফিগারেশনে আমরা চাচ্ছি, সেই অনুযায়ী পাচ্ছি না। ইউরোপে ৩ ক্লাস কনফিগারেশনের প্রচলন থাকলেও বাংলাদেশে এটি চলবে না। আবার রিকনফিগারেশন করতে গেলে ২-৩ মিলিয়ন ডলারের খরচ আছে, সেই খরচ আমাদের বহন করতে হবে। এ কারণে আমরা রিকনফিগারেশন দিকে যাবো না।

দেশে ডলার সংকটও চ্যালেঞ্জ বলে জানালেন নভোএয়ারের এমডি মফিজুর রহমান। তিনি বলেন, কিছু কিছু লিজিং প্রতিষ্ঠান আমাদের প্রথমেই প্রশ্নে করে, তোমাদের (নভোএয়ার) উড়োজাহাজ লিজ দিলে তো তোমরা পেমেন্ট ঠিক মতো দিতে পারবে না, বাংলাদেশে তো ডলার সংকট। আমরা তাদের আশ্বস্ত করেছি, জানিয়েছি আমরা তো এখন পার্টস কিনছি। প্রতি মাসে আমাদের ২ মিলিয়ন ডলারের পার্টস কেনা লাগে, এসব পেমেন্ট তো আমরা করছি।

আরো পড়ুন:

মফিজুর রহমান বলেন, এরমধ্যেও আমরা উড়োজাহাজের সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছি। লিজিং প্রতিষ্ঠান আমাদের আশ্বাস দিয়েছে এ বছর মার্চের মধ্যে উড়োজাহাজ পাওয়া সম্ভব হবে।

৬টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা কথা বললেন নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। মফিজুর রহমান বলেন, নতুন উড়োজাহাজগুলো যুক্ত হলেই ব্যাংকক, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, দুবাই, শারজাহ, মাস্কাটে আমাদের ফ্লাইট শুরু করবো। নিরাপত্তা ও সেবা, এই দুই মূলমন্ত্রকে আমরা সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। একটি বিশ্বমানের সেবা প্রদানের প্রতিশ্রুতি নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু। সময়ানুযায়ী ফ্লাইট পরিচালনা ও নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করাই আমাদের ব্যবসায়িক দর্শনের সর্বোচ্চ প্রাধিকার।

সুত্র; বাংলা বিট্রিউন