১১:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুই দিনে সারাদেশে ২২টি হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে

দুদিনে সারাদেশে ২২ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ,

print news -

নিউজ ডেস্ক:  চিকিৎসা সেবা দিতে অনুমতি না দেওয়া ও নানা অনিয়মের কারণে গত দুই দিনে সারাদেশে ২২টি হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এছাড়া আটটি হাসপাতালকে জরিমানা ও আটজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সারাদেশে ৩৭টি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। বুধবার ১০টি হাসপাতালে অপারেশন করা হয়। ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অধিকাংশ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ রয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডাঃ মোহাম্মদ মঈনুল আহসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতালে এক শিশুর মৃত্যুর পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বিভিন্ন অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধের অভিযানের ঘোষণা দেয়। . . মঙ্গলবার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে।

“বন্ধ হওয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোর কোনোটিরই বৈধ কাগজপত্র ছিল না, নথি থাকলেও নানা অনিয়ম পাওয়া গেছে। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে, কোনো কোনো হাসপাতাল পরিবেশ ভালো থাকায় কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

লাইফকেয়ার জেনারেল হাসপাতাল, মোহাম্মদপুর, ঢাকা; পিপলস হেলথ কেয়ার টেকনোলজিস্ট, ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড কনসালটেশন সেন্টার; টিজি হাসপাতাল, মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ার, কলেজগেট এলাকা; রেডিয়াম ব্লাড ব্যাংক এবং এএইচএস ডায়ালাইসিস অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার; ঢাকা হেলথ কেয়ার বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আরো পড়ুন: দুই দিনের অভিযানে ২২ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ

মিরপুরের মাটিকাটা এলাকার ইশতিকাক মেডিকেল সেন্টার, রাজধানী ব্লাড ব্যাংক, হেলথ পয়েন্ট, আল হাকিমি চক্ষু হাসপাতাল, কালশীতে এএইচএস ডায়ালাইসিস অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, এশিয়ান ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং মালিবাগের জেএস ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড মেডিকেল চেকআপ সেন্টার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সাভারের ফুলবাড়িয়া এলাকার আদনান হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, হেমায়েতপুরের রহমান স্পেশালাইজড হাসপাতাল, টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা ডায়াবেটিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রংপুরের আরকে রোডের মেট্রো হাসপাতাল, ধাপ এলাকায় সালমা ব্লাড ট্রান্সফিউশন সেন্টার এবং টেক্সটাইল মোড়ের মেডিকেয়ার ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং হোম বন্ধ ছিল।

বুধবা র ঢাকার ১০টি হাসপাতা ল পরিদর্শনে র পর তিনটি হাসপাতা ল ব ন্ধ ঘোষণা করা হয়ে ছে বলে জানিয়েছে স্বা স্থ্য অধিদপ্ত র।

মোহাম্মদপুর ইকবাল রোডের কেয়ার হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, শ্যামলীর ঢাকা ট্রমা সেন্টার, বিশেষায়িত হাসপাতাল এবং উত্তরার হাইকেয়ার কার্ডিয়াক অ্যান্ড নিউরো হাসপাতাল ওই দিন বন্ধ ছিল।
আমাদের নীলফামারী প্রতিনিধি জানান, নিবন্ধন ছাড়া কার্যক্রম চালানোয় ডোমারে চারটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

বন্ধ হওয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো হলো স্কয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ট্রাস্ট ডায়াগনস্টিক সেন্টার, নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং আনসার আলী ডায়াগনস্টিক সেন্টার।
অভিযা নে নেতৃত্ব দে ন ডোমার উপজে লা স্বা*স্থ্য ও পরিবা র পরিকল্প না কর্মক র্তা মোঃ রায়হান বারী। তাকে সহযোগিতা করেন উপজেলা স্যানিটারি অফিসার মোঃ আল-আমিন রহমান।

আরো পড়ুন: অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিকের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী অভিযান

বুধবা-র চুয়াডাঙ্গা র বিভিন্ন ক্লিনি ক ও ডায়াগনস্টি ক সেন্টারে অভিযা ন চালিয়েছে ভো ক্তা সংরক্ষ ণ অধিদপ্ত র।

জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার অপরাধে সদর হাসপাতাল রোডের মদিনা ক্লিনিকের মালিক হুমায়ুন কবিরকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া গ্রিন লাইফ মেডিকেল সেন্টারের মালিক আরফিনা খাতুনকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকেও অভিযান চালিয়েছে ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদপ্তর। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ অভিযানে নগরীর মেহেদীবাগ এলাকার ম্যাক্স হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক হাসপাতাল ও ন্যাশনাল হাসপাতালকে জরিমানা করা হয়।

ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. ওয়াজেদ চৌধুরী জানান, ম্যাক্স হাসপাতালের ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্যাডে টেকনোলজিস্টের অগ্রিম স্বাক্ষর দেখা যায়। মেয়াদোত্তীর্ণ রাসায়নিকও ল্যাবে পাওয়া যায়। ইসিজি করার জন্য কোনো কার্ডিওগ্রাফার ছিল না। এসব অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়াও, ন্যাশনাল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ইসিজি করার জন্য কার্ডিওগ্রাফার পাওয়া যায়নি। মেয়াদোত্তীর্ণ রাসায়নিকগুলি সিগমা ল্যাবগুলিতে পাওয়া যায় যেখানে তারা কাজ করে। এসব অভিযোগে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ল্যাবটিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে।

সিভিল সার্জন ইলিয়াস চৌধুরীর নেতৃত্বে নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল, মা ও শিশু পরিচর্যা হাসপাতাল ও মেডএইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। এর মধ্যে নোংরা পরিবেশ ও অস্বাস্থ্যকর অপারেশন থিয়েটার রুমের কারণে মা ও চাইল্ড কেয়ার হাসপাতালকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

দুই মাসের মধ্যে খৎনা করাতে গিয়ে দুই শিশুর মৃত্যু নিয়ে রাজধানীতে আলোচনা চলছে। গত ২০ জানুয়ারি রাতে চৌধুরীপাড়ার জেএস ডায়াগনস্টিক সেন্টারে খতনার জন্য আসার পর মারা যায় ১০ বছরের শিশু আহনাফ তাহমিন আয়হাম।
এর আগে গত ৩১ ডিসেম্বর রাজধানীর সীতাকুলের ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পর জ্ঞান ফেরেনি শিশু অয়ন আহমেদ। গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে সাতদিন লাইফ সাপোর্টে রাখার পর ৭ জানুয়ারি তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

 

সুত্র: bdnews24.com

জনপ্রিয় সংবাদ

মুক্তিযুদ্ধা সংগঠক আব্দুর রাজ্জাকের ইন্তেকাল।। বিশিষ্টজনের শোক প্রকাশ

দুই দিনে সারাদেশে ২২টি হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৬:২০:৩৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

নিউজ ডেস্ক:  চিকিৎসা সেবা দিতে অনুমতি না দেওয়া ও নানা অনিয়মের কারণে গত দুই দিনে সারাদেশে ২২টি হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এছাড়া আটটি হাসপাতালকে জরিমানা ও আটজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সারাদেশে ৩৭টি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। বুধবার ১০টি হাসপাতালে অপারেশন করা হয়। ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অধিকাংশ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ রয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডাঃ মোহাম্মদ মঈনুল আহসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতালে এক শিশুর মৃত্যুর পর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বিভিন্ন অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধের অভিযানের ঘোষণা দেয়। . . মঙ্গলবার থেকে অভিযান শুরু হয়েছে।

“বন্ধ হওয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোর কোনোটিরই বৈধ কাগজপত্র ছিল না, নথি থাকলেও নানা অনিয়ম পাওয়া গেছে। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে, কোনো কোনো হাসপাতাল পরিবেশ ভালো থাকায় কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

লাইফকেয়ার জেনারেল হাসপাতাল, মোহাম্মদপুর, ঢাকা; পিপলস হেলথ কেয়ার টেকনোলজিস্ট, ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড কনসালটেশন সেন্টার; টিজি হাসপাতাল, মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ার, কলেজগেট এলাকা; রেডিয়াম ব্লাড ব্যাংক এবং এএইচএস ডায়ালাইসিস অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার; ঢাকা হেলথ কেয়ার বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আরো পড়ুন: দুই দিনের অভিযানে ২২ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ

মিরপুরের মাটিকাটা এলাকার ইশতিকাক মেডিকেল সেন্টার, রাজধানী ব্লাড ব্যাংক, হেলথ পয়েন্ট, আল হাকিমি চক্ষু হাসপাতাল, কালশীতে এএইচএস ডায়ালাইসিস অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, এশিয়ান ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং মালিবাগের জেএস ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড মেডিকেল চেকআপ সেন্টার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সাভারের ফুলবাড়িয়া এলাকার আদনান হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, হেমায়েতপুরের রহমান স্পেশালাইজড হাসপাতাল, টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা ডায়াবেটিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রংপুরের আরকে রোডের মেট্রো হাসপাতাল, ধাপ এলাকায় সালমা ব্লাড ট্রান্সফিউশন সেন্টার এবং টেক্সটাইল মোড়ের মেডিকেয়ার ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং হোম বন্ধ ছিল।

বুধবা র ঢাকার ১০টি হাসপাতা ল পরিদর্শনে র পর তিনটি হাসপাতা ল ব ন্ধ ঘোষণা করা হয়ে ছে বলে জানিয়েছে স্বা স্থ্য অধিদপ্ত র।

মোহাম্মদপুর ইকবাল রোডের কেয়ার হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, শ্যামলীর ঢাকা ট্রমা সেন্টার, বিশেষায়িত হাসপাতাল এবং উত্তরার হাইকেয়ার কার্ডিয়াক অ্যান্ড নিউরো হাসপাতাল ওই দিন বন্ধ ছিল।
আমাদের নীলফামারী প্রতিনিধি জানান, নিবন্ধন ছাড়া কার্যক্রম চালানোয় ডোমারে চারটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

বন্ধ হওয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো হলো স্কয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ট্রাস্ট ডায়াগনস্টিক সেন্টার, নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং আনসার আলী ডায়াগনস্টিক সেন্টার।
অভিযা নে নেতৃত্ব দে ন ডোমার উপজে লা স্বা*স্থ্য ও পরিবা র পরিকল্প না কর্মক র্তা মোঃ রায়হান বারী। তাকে সহযোগিতা করেন উপজেলা স্যানিটারি অফিসার মোঃ আল-আমিন রহমান।

আরো পড়ুন: অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিকের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী অভিযান

বুধবা-র চুয়াডাঙ্গা র বিভিন্ন ক্লিনি ক ও ডায়াগনস্টি ক সেন্টারে অভিযা ন চালিয়েছে ভো ক্তা সংরক্ষ ণ অধিদপ্ত র।

জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার অপরাধে সদর হাসপাতাল রোডের মদিনা ক্লিনিকের মালিক হুমায়ুন কবিরকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া গ্রিন লাইফ মেডিকেল সেন্টারের মালিক আরফিনা খাতুনকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকেও অভিযান চালিয়েছে ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদপ্তর। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ অভিযানে নগরীর মেহেদীবাগ এলাকার ম্যাক্স হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক হাসপাতাল ও ন্যাশনাল হাসপাতালকে জরিমানা করা হয়।

ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. ওয়াজেদ চৌধুরী জানান, ম্যাক্স হাসপাতালের ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্যাডে টেকনোলজিস্টের অগ্রিম স্বাক্ষর দেখা যায়। মেয়াদোত্তীর্ণ রাসায়নিকও ল্যাবে পাওয়া যায়। ইসিজি করার জন্য কোনো কার্ডিওগ্রাফার ছিল না। এসব অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়াও, ন্যাশনাল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ইসিজি করার জন্য কার্ডিওগ্রাফার পাওয়া যায়নি। মেয়াদোত্তীর্ণ রাসায়নিকগুলি সিগমা ল্যাবগুলিতে পাওয়া যায় যেখানে তারা কাজ করে। এসব অভিযোগে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ল্যাবটিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে।

সিভিল সার্জন ইলিয়াস চৌধুরীর নেতৃত্বে নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল, মা ও শিশু পরিচর্যা হাসপাতাল ও মেডএইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। এর মধ্যে নোংরা পরিবেশ ও অস্বাস্থ্যকর অপারেশন থিয়েটার রুমের কারণে মা ও চাইল্ড কেয়ার হাসপাতালকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

দুই মাসের মধ্যে খৎনা করাতে গিয়ে দুই শিশুর মৃত্যু নিয়ে রাজধানীতে আলোচনা চলছে। গত ২০ জানুয়ারি রাতে চৌধুরীপাড়ার জেএস ডায়াগনস্টিক সেন্টারে খতনার জন্য আসার পর মারা যায় ১০ বছরের শিশু আহনাফ তাহমিন আয়হাম।
এর আগে গত ৩১ ডিসেম্বর রাজধানীর সীতাকুলের ইউনাইটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পর জ্ঞান ফেরেনি শিশু অয়ন আহমেদ। গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে সাতদিন লাইফ সাপোর্টে রাখার পর ৭ জানুয়ারি তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

 

সুত্র: bdnews24.com