০১:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

print news -

জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ আন্তঃ হাউস বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা-২০২৪ সম্পন্ন হয়েছে। সিলেটের স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ আন্তঃহাউস বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০২৪ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গতকাল বৃহস্পতিবার সম্পন্ন হয়েছে। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের শারীরিক দক্ষতা ও শৃঙ্খলাবোধ জাগ্রত করার জন্য প্রতিবছর এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। যা শিক্ষার্থীদেরকে আরো বেশি দায়িত্বশীল ও দক্ষতাসম্পন্ন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে সহায়তা করে।
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চূড়ান্ত দিবসের অনুষ্ঠান শুরু হয় বেলা ০৩.০০ ঘটিকায়। দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আল আমিন বিন আলীমের পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান পৃষ্ঠপোষক, জিওসি ১৭ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার, সিলেট এরিয়া মেজর জেনারেল চৌধুরী মোহাম্মদ আজিজুল হক হাজারী, ওএসপি (বার), এসজিপি, এনডিসি, পিএসসি, এমফিল।
এসময় শিক্ষার্থীদের হাতে থাকা কয়েকশ বেলুন উড়িয়ে দেওয়া হয়। সে দৃশ্যটি ছিল খুবই উপভোগ্য। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি সহপাঠক্রমিক কার্যক্রমে অংশগ্রহন ও খেলাধুলা শিক্ষার্থীদের শারীরিক এবং মানসিক বিকাশের জন্য সহায়ক। যা তাদের কর্মক্ষম করে, প্রতিযোগী মনোভাব নিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা যোগায়। তিনি প্রতিষ্ঠানের সহপাঠক্রমিক কার্যাবলীতে শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রণের প্রশংসা করেন এবং বিদ্যালয়ের উত্তরোত্তর সফলতার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এসময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ও কমান্ডার ৫২ পদাতিক ব্রিগেড, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম রাশেদ, এএফডব্লিউসি, পিএসসি সহ গভর্নিং বডির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষকমন্ডলী ও অভিভাবকবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্যে তিনি প্রতিষ্ঠানের বিগত বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ও সহশিক্ষা কার্যক্রমের বিভিন্ন বিষয়ে বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ে জেসিইএসসির শিক্ষার্থীদের সাফল্যের চিত্র তুলে ধরেন।
বিএনসিসি, বালক স্কাউট, বালিকা স্কাউট, ওসমানী, শাহজালাল, মুশফিক হাউসের শিক্ষার্থী ও বাদক দলের অংশগ্রহণে ছিল প্যারেড ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা। কলেজ প্রিফেক্ট, প্যারেড কমান্ডার ও বিএনসিসি ক্যাডেট একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ওয়াফি মাওলার নেতৃত্বে সম্মিলিত মার্চপাস্ট কন্টিনজেন্ট প্রধান অতিথিকে সালাম ও অভিবাদন জানায়। সমাপনী দিনে বিভিন্ন খেলার ইভেন্ট এর পাশাপাশি যেমনখুশি তেমন সাজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। এছাড়া অভিভাবকদের অংশগ্রহণে প্রতিযোগিতা ছিল উপভোগ করার মত। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় মুশফিক হাউজ চ্যাম্পিয়ন এবং শাহজালাল হাউজ রানারআপ হয়। অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্যের জন্য একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী নাজিফা আঞ্জুমকে বেস্ট অ্যাথলেটস এর পুরষ্কার দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিল বর্ণিল সাজে সজ্জিত শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ: ইতিহাস ও ঐতিহ্য’ শিরোনামে মনোমুগ্ধকর ডিসপ্লে। সেখানে বাংলাদেশে ইতিহাস ও ঐহ্যিত্র ও ষড়ঋতুর চিত্র তুলে ধরা হয়।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শিক্ষক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ও হৃদি ফারহাত এবং সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন সহাকারী শিক্ষক ওয়াহিদুল ইসলাম।

ট্যাগঃ

জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০১:২৩:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
print news -

জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ আন্তঃ হাউস বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা-২০২৪ সম্পন্ন হয়েছে। সিলেটের স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ আন্তঃহাউস বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০২৪ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গতকাল বৃহস্পতিবার সম্পন্ন হয়েছে। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের শারীরিক দক্ষতা ও শৃঙ্খলাবোধ জাগ্রত করার জন্য প্রতিবছর এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে। যা শিক্ষার্থীদেরকে আরো বেশি দায়িত্বশীল ও দক্ষতাসম্পন্ন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে সহায়তা করে।
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চূড়ান্ত দিবসের অনুষ্ঠান শুরু হয় বেলা ০৩.০০ ঘটিকায়। দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আল আমিন বিন আলীমের পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান পৃষ্ঠপোষক, জিওসি ১৭ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার, সিলেট এরিয়া মেজর জেনারেল চৌধুরী মোহাম্মদ আজিজুল হক হাজারী, ওএসপি (বার), এসজিপি, এনডিসি, পিএসসি, এমফিল।
এসময় শিক্ষার্থীদের হাতে থাকা কয়েকশ বেলুন উড়িয়ে দেওয়া হয়। সে দৃশ্যটি ছিল খুবই উপভোগ্য। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি সহপাঠক্রমিক কার্যক্রমে অংশগ্রহন ও খেলাধুলা শিক্ষার্থীদের শারীরিক এবং মানসিক বিকাশের জন্য সহায়ক। যা তাদের কর্মক্ষম করে, প্রতিযোগী মনোভাব নিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা যোগায়। তিনি প্রতিষ্ঠানের সহপাঠক্রমিক কার্যাবলীতে শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রণের প্রশংসা করেন এবং বিদ্যালয়ের উত্তরোত্তর সফলতার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এসময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ও কমান্ডার ৫২ পদাতিক ব্রিগেড, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম রাশেদ, এএফডব্লিউসি, পিএসসি সহ গভর্নিং বডির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষকমন্ডলী ও অভিভাবকবৃন্দ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট ইংলিশ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্যে তিনি প্রতিষ্ঠানের বিগত বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল ও সহশিক্ষা কার্যক্রমের বিভিন্ন বিষয়ে বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ে জেসিইএসসির শিক্ষার্থীদের সাফল্যের চিত্র তুলে ধরেন।
বিএনসিসি, বালক স্কাউট, বালিকা স্কাউট, ওসমানী, শাহজালাল, মুশফিক হাউসের শিক্ষার্থী ও বাদক দলের অংশগ্রহণে ছিল প্যারেড ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা। কলেজ প্রিফেক্ট, প্যারেড কমান্ডার ও বিএনসিসি ক্যাডেট একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ওয়াফি মাওলার নেতৃত্বে সম্মিলিত মার্চপাস্ট কন্টিনজেন্ট প্রধান অতিথিকে সালাম ও অভিবাদন জানায়। সমাপনী দিনে বিভিন্ন খেলার ইভেন্ট এর পাশাপাশি যেমনখুশি তেমন সাজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। এছাড়া অভিভাবকদের অংশগ্রহণে প্রতিযোগিতা ছিল উপভোগ করার মত। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় মুশফিক হাউজ চ্যাম্পিয়ন এবং শাহজালাল হাউজ রানারআপ হয়। অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্যের জন্য একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী নাজিফা আঞ্জুমকে বেস্ট অ্যাথলেটস এর পুরষ্কার দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিল বর্ণিল সাজে সজ্জিত শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ: ইতিহাস ও ঐতিহ্য’ শিরোনামে মনোমুগ্ধকর ডিসপ্লে। সেখানে বাংলাদেশে ইতিহাস ও ঐহ্যিত্র ও ষড়ঋতুর চিত্র তুলে ধরা হয়।
অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শিক্ষক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ও হৃদি ফারহাত এবং সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন সহাকারী শিক্ষক ওয়াহিদুল ইসলাম।