০৮:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চিত্রনায়ক ফারুক এর মৃত্যুতে গভির শোক প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট

print news -

চিত্রনায়ক ফারুক এর মৃত্যুতে গভির শোক প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটি। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট এর সভাপতি বাংলা চলচিত্রের মিয়া ভাই খ্যাত কিংবদন্তী নায়ক বীর মুক্তিযোব্ধা চিত্রনায়ক আকবর হোসেন পাঠান(ফারুক) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (১৫ মে) স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন ছেলে রওশন হোসেন পাঠান । রওশন জানান, অভিনেতা ফারুকের মরদেহ মঙ্গলবার ভোরের ফ্লাইটে ঢাকায় আনা হবে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটির সাধারন সম্পাদক মো: আহসান সিদ্দিকী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটির প্রধান সমন্নয়কারী ও সহ সভাপতি এম এ মিলন মিয়া সহ জেলা, উপজেলা, বিভাগীয় কমিটির নেত্রিবৃন্দ সহ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট পরিবার গভির ভাবে শোক প্রকাশ করেছে।

বাঙালি জাতীয়তাবাদ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের জন্ম হয়। এই ঐতিহ্যবাহী সংগঠন যার যাত্রা শুরু ১৯৭৬ সালে।

অভিনেতা ফারুক দীর্ঘদিন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আট বছর ধরে এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন এই অভিনয়শিল্পী ও রাজনীতিবিদ। সর্বশেষ ২০২১ সালের মার্চ মাসের প্রথম দিকে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সিঙ্গাপুরে যান তিনি। পরীক্ষায় রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর পর থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থতা অনুভব করছিলেন তিনি। সিঙ্গাপুরে নিজের পরিচিত চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। হাসপাতালে ভর্তির কয় দিন পর তাঁর মস্তিষ্কেও সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চিকিৎসা ব্যর্থ হয়। আজ সিঙ্গাপুর স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৯৪৮ সালের ১৮ আগস্ট ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ফারুক। এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালে ঢাকাই সিনেমায় তাঁর অভিষেক। প্রথম সিনেমায় তাঁর বিপরীতে ছিলেন কবরী। এরপর ১৯৭৩ সালে খান আতাউর রহমানের পরিচালনায় মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘আবার তোরা মানুষ হ’ এবং ১৯৭৪ সালে নারায়ণ ঘোষ মিতার ‘আলোর মিছিল’ দুটি সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

প্রায় পাঁচ দশক ঢালিউডে অবদান রেখেছেন অভিনেতা ফারুক। অভিনয় থেকে অবসর নেওয়ার পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঢাকা-১৭ আসনে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

চিত্রনায়ক ফারুক এর মৃত্যুতে গভির শোক প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট

প্রকাশিত হয়েছেঃ ০৮:০২:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ মে ২০২৩
print news -

চিত্রনায়ক ফারুক এর মৃত্যুতে গভির শোক প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটি। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট এর সভাপতি বাংলা চলচিত্রের মিয়া ভাই খ্যাত কিংবদন্তী নায়ক বীর মুক্তিযোব্ধা চিত্রনায়ক আকবর হোসেন পাঠান(ফারুক) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (১৫ মে) স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন ছেলে রওশন হোসেন পাঠান । রওশন জানান, অভিনেতা ফারুকের মরদেহ মঙ্গলবার ভোরের ফ্লাইটে ঢাকায় আনা হবে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটির সাধারন সম্পাদক মো: আহসান সিদ্দিকী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রিয় কমিটির প্রধান সমন্নয়কারী ও সহ সভাপতি এম এ মিলন মিয়া সহ জেলা, উপজেলা, বিভাগীয় কমিটির নেত্রিবৃন্দ সহ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট পরিবার গভির ভাবে শোক প্রকাশ করেছে।

বাঙালি জাতীয়তাবাদ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের জন্ম হয়। এই ঐতিহ্যবাহী সংগঠন যার যাত্রা শুরু ১৯৭৬ সালে।

অভিনেতা ফারুক দীর্ঘদিন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আট বছর ধরে এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন এই অভিনয়শিল্পী ও রাজনীতিবিদ। সর্বশেষ ২০২১ সালের মার্চ মাসের প্রথম দিকে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সিঙ্গাপুরে যান তিনি। পরীক্ষায় রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর পর থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থতা অনুভব করছিলেন তিনি। সিঙ্গাপুরে নিজের পরিচিত চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। হাসপাতালে ভর্তির কয় দিন পর তাঁর মস্তিষ্কেও সংক্রমণ ধরা পড়ে। সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চিকিৎসা ব্যর্থ হয়। আজ সিঙ্গাপুর স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৯৪৮ সালের ১৮ আগস্ট ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন ফারুক। এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালে ঢাকাই সিনেমায় তাঁর অভিষেক। প্রথম সিনেমায় তাঁর বিপরীতে ছিলেন কবরী। এরপর ১৯৭৩ সালে খান আতাউর রহমানের পরিচালনায় মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘আবার তোরা মানুষ হ’ এবং ১৯৭৪ সালে নারায়ণ ঘোষ মিতার ‘আলোর মিছিল’ দুটি সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

প্রায় পাঁচ দশক ঢালিউডে অবদান রেখেছেন অভিনেতা ফারুক। অভিনয় থেকে অবসর নেওয়ার পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঢাকা-১৭ আসনে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি।