০৯:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আশিকুর রহমান আশিক ‘ফ্রিডম অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ উপাধিতে ভূষিত

print news -

বিশেষ প্রতিনিধি :

সমাজসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য যুক্তরাজ্যবাসী আশিকুর রহমান গ্রেট ব্রিটেনের সম্মানজনক আন্তর্জাতিক পুরষ্কার ‘ ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।
আশিকুর রহমান বিগত বিশ বছর থেকে যুক্তরাজ্যে কমিউনিটির সেবায় কাজ করছেন।
সোমবার, ২৪শে অক্টোবর লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী গিল্ডহল এর লর্ড চেম্বারলিন চেম্বারে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এ পুরষ্কার আশিকুর রহমান হাতে তুলে দেয়া হয়।
অনুষ্ঠানে আশিকুর রহমানকে ‘ডিক্লারেশন অব দ্যা ফ্রিম্যান’ পড়তে আহ্বান জানান ডেপুটি ক্লার্ক টু দ্যা চেম্বারলেইন কোর্ট – টিফেইন লি বিয়ান ।
পরে টিফেইন লি বিয়ান পরিবারের সদস্য, সহকর্মী ও শুভাকাঙ্খীদের উপস্থিতিতে আশিকুর রহমান হাতে ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মাননাটি তুলে দেন।
১২৩৭ সাল থেকে ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন (ফ্রীম্যানশীপ) সম্মাননা চালু রয়েছে। এটি একটি আন্তর্জাতিক মানের সম্মাননা।
বিশেষ করে লন্ডনের সর্বোচ্চ এই সম্মান তাঁদেরকেই দেয়া হয়, যাঁরা নিজ নিজ কাজের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে সফলতার সাথে অসাধারণ অবদান রেখে চলেছেন।
বাংলাদেশী বংশদ্ভুদ আশিকুর রহমান ব্রিটিশ চ্যারিটি সংস্থা ‘দ্যা হিউম্যানিটারিয়ান লাইভ ট্রাস্ট ইউকে’র চেয়ারম্যান। মহামারী কোভিড-১৯ এর শুরু থেকে তিনি লন্ডনের গৃহবন্দি বিশেষকরে বয়স্ক,গৃহহীন,আনডকুমেন্টেড ও কর্মহীন নিডি মানুষদের ঘরে ঘরে খাবার সহায়তায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। কোভিড-১৯ ফুড ব্যাংক শিরোনামে সামাজিক সহায়তা কার্যক্রমের সবচেয়ে পজিটিভ দিক ছিল-নিভৃত্তে নিডি মানুষদের ঘরে চাহিদা অনুযায়ী খাবার পৌছে দেয়া।
তিনি যুক্তরাজ্যের এনআরবি সংগঠন বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। প্রবাসীদের ভোটাধিকার,আইডি কার্ড, আনডকুমেন্টদের বাংলাদেশী পাসপোর্ট তৈরীতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, বিমানবন্দরে হয়রানী ইত্যাদি বিষয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রভাগে থেকে কাজ করছেন।
তিনি যুক্তরাজ্যের এনআরবি সংগঠন বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। প্রবাসীদের ভোটাধিকার,আইডি কার্ড, আনডকুমেন্টদের বাংলাদেশী পাসপোর্ট তৈরীতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, বিমানবন্দরে হয়রানী ইত্যাদি বিষয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রভাগে থেকে কাজ করছেন।
এওয়ার্ড প্রদান সময়ে উপস্থিত ছিলেন ইউকে বিবিসিআই এর সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বখত ফারুক, কাউন্সিলার জামাল আহমেদ,বাংলাদেশ সেন্টারের ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহিবুর রহমান, ওয়েস্টহ্যাম লেবার পার্টির চেয়ারম্যান জেইন মিয়া, বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের সেক্রেটারী মইনুদ্দিন আনসার ,ভাইস চেয়ারম্যান মানিকুর রহমান গণি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাজী আরিফ এবং চ্যানেল এস এর সিনিয়র প্রোডিউসার আহাদ আহমদ,সাংবাদিক জাকির জোসেন কয়েস, ভয়েস অফ নিউহ্যাম এর ট্রেজারার আব্দুল মিয়া, ও খেলাফত মজলিস লণ্ডন রিজ্যন এর জেনারেল সেক্রেটরী মাওলানা আনিসুর রহমান।
আশিকুর রহমানের দেশের বাড়ি সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার উপজেলার নবাং গ্রামে। তার মায়ের নাম মেহেরুন নেঝা খান, বাবা হাজী থেয়বুর রহমান।স্ত্রী মমিলা আক্তার শিপা ও ৬ সম্তান নিয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে ইস্ট লন্ডনের নিউহ্যাম বারার বসবাস করছেন।
আশিকুর রহমান ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মাননাটি তার মা-বাকে উৎসর্গ করেছেন। কমিউনিটির মানুষের সেবায় নিজেকে আরও বেশী করে নিবেদিত রাখার প্রত্যয় নিয়ে সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

ট্যাগঃ
জনপ্রিয় সংবাদ

বন্যা পরিস্থিতির অবনতি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও কুড়িগ্রাম

আশিকুর রহমান আশিক ‘ফ্রিডম অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ উপাধিতে ভূষিত

প্রকাশিত হয়েছেঃ ১২:৫৭:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৫ নভেম্বর ২০২২
print news -

বিশেষ প্রতিনিধি :

সমাজসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য যুক্তরাজ্যবাসী আশিকুর রহমান গ্রেট ব্রিটেনের সম্মানজনক আন্তর্জাতিক পুরষ্কার ‘ ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।
আশিকুর রহমান বিগত বিশ বছর থেকে যুক্তরাজ্যে কমিউনিটির সেবায় কাজ করছেন।
সোমবার, ২৪শে অক্টোবর লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী গিল্ডহল এর লর্ড চেম্বারলিন চেম্বারে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এ পুরষ্কার আশিকুর রহমান হাতে তুলে দেয়া হয়।
অনুষ্ঠানে আশিকুর রহমানকে ‘ডিক্লারেশন অব দ্যা ফ্রিম্যান’ পড়তে আহ্বান জানান ডেপুটি ক্লার্ক টু দ্যা চেম্বারলেইন কোর্ট – টিফেইন লি বিয়ান ।
পরে টিফেইন লি বিয়ান পরিবারের সদস্য, সহকর্মী ও শুভাকাঙ্খীদের উপস্থিতিতে আশিকুর রহমান হাতে ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মাননাটি তুলে দেন।
১২৩৭ সাল থেকে ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন (ফ্রীম্যানশীপ) সম্মাননা চালু রয়েছে। এটি একটি আন্তর্জাতিক মানের সম্মাননা।
বিশেষ করে লন্ডনের সর্বোচ্চ এই সম্মান তাঁদেরকেই দেয়া হয়, যাঁরা নিজ নিজ কাজের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে সফলতার সাথে অসাধারণ অবদান রেখে চলেছেন।
বাংলাদেশী বংশদ্ভুদ আশিকুর রহমান ব্রিটিশ চ্যারিটি সংস্থা ‘দ্যা হিউম্যানিটারিয়ান লাইভ ট্রাস্ট ইউকে’র চেয়ারম্যান। মহামারী কোভিড-১৯ এর শুরু থেকে তিনি লন্ডনের গৃহবন্দি বিশেষকরে বয়স্ক,গৃহহীন,আনডকুমেন্টেড ও কর্মহীন নিডি মানুষদের ঘরে ঘরে খাবার সহায়তায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। কোভিড-১৯ ফুড ব্যাংক শিরোনামে সামাজিক সহায়তা কার্যক্রমের সবচেয়ে পজিটিভ দিক ছিল-নিভৃত্তে নিডি মানুষদের ঘরে চাহিদা অনুযায়ী খাবার পৌছে দেয়া।
তিনি যুক্তরাজ্যের এনআরবি সংগঠন বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। প্রবাসীদের ভোটাধিকার,আইডি কার্ড, আনডকুমেন্টদের বাংলাদেশী পাসপোর্ট তৈরীতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, বিমানবন্দরে হয়রানী ইত্যাদি বিষয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রভাগে থেকে কাজ করছেন।
তিনি যুক্তরাজ্যের এনআরবি সংগঠন বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। প্রবাসীদের ভোটাধিকার,আইডি কার্ড, আনডকুমেন্টদের বাংলাদেশী পাসপোর্ট তৈরীতে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, বিমানবন্দরে হয়রানী ইত্যাদি বিষয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন সংগ্রামের অগ্রভাগে থেকে কাজ করছেন।
এওয়ার্ড প্রদান সময়ে উপস্থিত ছিলেন ইউকে বিবিসিআই এর সাবেক প্রেসিডেন্ট শাহগীর বখত ফারুক, কাউন্সিলার জামাল আহমেদ,বাংলাদেশ সেন্টারের ভাইস প্রেসিডেন্ট মুহিবুর রহমান, ওয়েস্টহ্যাম লেবার পার্টির চেয়ারম্যান জেইন মিয়া, বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের সেক্রেটারী মইনুদ্দিন আনসার ,ভাইস চেয়ারম্যান মানিকুর রহমান গণি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাজী আরিফ এবং চ্যানেল এস এর সিনিয়র প্রোডিউসার আহাদ আহমদ,সাংবাদিক জাকির জোসেন কয়েস, ভয়েস অফ নিউহ্যাম এর ট্রেজারার আব্দুল মিয়া, ও খেলাফত মজলিস লণ্ডন রিজ্যন এর জেনারেল সেক্রেটরী মাওলানা আনিসুর রহমান।
আশিকুর রহমানের দেশের বাড়ি সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার উপজেলার নবাং গ্রামে। তার মায়ের নাম মেহেরুন নেঝা খান, বাবা হাজী থেয়বুর রহমান।স্ত্রী মমিলা আক্তার শিপা ও ৬ সম্তান নিয়ে তিনি দীর্ঘদিন থেকে ইস্ট লন্ডনের নিউহ্যাম বারার বসবাস করছেন।
আশিকুর রহমান ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মাননাটি তার মা-বাকে উৎসর্গ করেছেন। কমিউনিটির মানুষের সেবায় নিজেকে আরও বেশী করে নিবেদিত রাখার প্রত্যয় নিয়ে সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।